বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জানতে চাইলে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন কোম্পানীগঞ্জ থানার নতুন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইফুদ্দিন আনোয়ার।

প্রসঙ্গত, শনিবার সকাল নয়টার দিকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের অনুসারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমানের ওপর বসুরহাটের নিত্যন্দন মোড় এলাকায় হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার প্রতিবাদে মিজানুরের অনুসারীরা সড়ক অবরোধ করেন। পুলিশ সরিয়ে দিতে গেলে তাঁরা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ান।

মিজানুর রহমানের অনুসারীদের অভিযোগ, সেতুমন্ত্রীর ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জার উপস্থিতিতে তাঁর অনুসারীরা ওই হামলা চালিয়েছেন। হামলাকারীরা মিজানুর রহমানকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেন এবং তাঁর গাড়ি ভাঙচুর করেন। একই সময় মিজানুরের সঙ্গে থাকা সাবেক ছাত্রলীগের নেতা হাসিবুল হোসেনকেও কুপিয়ে আহত করা হয়।

তবে আবদুল কাদের মির্জা ফেসবুক লাইভে এসে ওই হামলার ঘটনায় তাঁর সম্পৃক্ততার অভিযোগ অস্বীকার করেন এবং আগের একটি হামলার ঘটনার জেরে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিরা পাল্টা হামলা চালাতে পারেন বলে উল্লেখ করেন।

হামলায় গুরুতর আহত মিজানুর রহমানকে প্রথমে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। এরপর তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। হামলায় মিজানুর রহমানের দুই পা ও বুকের হাড় ভেঙে যায় এবং বাঁ কান কেটে যায় বলে উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র ওবায়দুল কাদেরের ভাগনে মাহবুবুর রশিদ জানিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন