বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভাড়ানী খাল দক্ষিণে পুকুরজনা হয়ে নদীতে মিশেছে। আর উত্তরে ধোপরহাটখোলা হয়ে রাজগঞ্জ খালে গিয়ে মিশেছে। খালটি ইউনিয়নের দক্ষিণ পাঙ্গাশিয়া গ্রামের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে। ইউনিয়নের মধ্য পাঙ্গাশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সংলগ্ন ভাড়ানী খালের ওপর লোহার সেতুটির অবস্থান। এর দৈর্ঘ্য ১৫ মিটার ও প্রস্থ ৩ মিটার। পুরোনো জরাজীর্ণ সেতুটি কয়েকবার মেরামত করেছিল স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)। গত জুন মাসে লোহার সেতুটি খালে ভেঙে পড়ে।

ভাড়ানী খালের দক্ষিণ পাড়ে রয়েছে বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়। উত্তর পাড়ে রয়েছে তেতুঁলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও একটি মাদ্রাসা। স্থানীয় লোকজনসহ শিশু-কিশোর শিক্ষার্থীরা নিয়মিত ওই সেতু দিয়ে চলাচল করে।

গত মঙ্গলবার গিয়ে দেখা যায়, সেতুর লোহার কাঠামো দীর্ঘদিন ধরে খালে পড়ে আছে। সেগুলোতে শেওলা ধরেছে। ভেঙে পড়া সেতুর কাছে ওই খালেই স্থানীয় ব্যক্তিরা বাঁশের সাঁকো তৈরি করে চলাচল করছে।

পাঙ্গাশিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক (ভারপ্রাপ্ত) হাবিবুর রহমান বলেন, এই সেতু পেরিয়ে খালের উত্তর পাড়ের শিশুশিক্ষার্থীরা স্কুলে আসা-যাওয়া করত। সেতু ভেঙে রয়েছে। বাঁশের সাঁকো তাদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়বে।

পাঙ্গাশিয়া ইউপির চেয়ারম্যান গাজী নজরুল ইসলাম বলেন, সেতু ভেঙে পড়ায় চলাচলে মারাত্মক অসুবিধা হচ্ছে। সেতুটি যেন দ্রুত মেরামত হয়, এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদের উন্নয়ন সভায় উপস্থাপন করা হয়েছে। শিগগিরই সংস্কারকাজ শুরু হবে।

উপজেলা প্রকৌশলী আজিজুর রহমান বলেন, লোহার সেতুটি মেরামতের জন্য প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ পেলে দ্রুততার সঙ্গে মেরামতকাজ শুরু হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন