default-image

নীলফামারীর সৈয়দপুরে এক স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ফায়ারম্যান আবু সাঈদকে (৩২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার রাতে তাঁকে গ্রেপ্তারের পর আজ রোববার জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯–এ কল পেয়ে ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার ও স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে শনিবার রাতে মেয়েটির বাবা তবার আলী নিজে বাদী হয়ে সৈয়দপুর থানায় একটি মামলা করেন।
গ্রেপ্তার সাঈদ সৈয়দপুর উপজেলার পূর্ব বোতলাগাড়ী গ্রামের ওয়াপদা নতুনহাটের মৃত আইয়ুব আলীর ছেলে। তিনি রংপুরের তারাগঞ্জ ফায়ার স্টেশনের ফায়ারম্যান হিসেবে কর্মরত।

মামলার সূত্রে জানা যায়, সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের পাশের একটি গ্রামের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর প্রাইভেট পড়তে যাওয়া–আসার পথে তাকে উত্ত্যক্ত করতেন আবু সাঈদ। গত ১৬ অক্টোবর ওই স্কুলছাত্রী বড় বোনের বাড়িতে বেড়াতে যায়। বড় বোন ও তার দুলাভাই এ সময় কর্মস্থলে ছিলেন। এ সুযোগে বিকেলে সাঈদ ওই বাড়িতে যান। এ সময় স্কুলছাত্রীকে একা পেয়ে ধর্ষণ করেন। পরে মেয়েটির বড় বোন কর্মস্থল থেকে বাসায় ফিরে বিষয়টি জানতে পারেন। শনিবার বিকেলে জাতীয় জরুরি সেবা নম্বরে (৯৯৯) কল করা হলে পুলিশ এসে মেয়েটিকে উদ্ধার করে এবং অভিযান চালিয়ে ফায়ারম্যান সাঈদকে গ্রেপ্তার করে।

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান জানান, রোববার সকালে আসামিকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে নীলফামারী জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে মামলাটি করেন। ওই স্কুলছাত্রীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0