বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এর আগে আজ বিকেলে নির্বাচন কমিশনের উপসচিব মো. মিজানুর রহমান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে নির্বাচনকালীন প্রশাসনিক কারণে ওসিকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া হয়। পুলিশের মহাপরিদর্শককে (আইজিপি) দেওয়া ওই চিঠিতে ওই থানায় একজন উপযুক্ত কর্মকর্তাকে নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। এরপরই জেলা পুলিশ থেকে সোনাইমুড়ী থানার ওসিকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া হয়।

সোনাইমুড়ী থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার দিবাগত রাত তিনটার পর উপজেলার বজরা এলাকা থেকে একটি অস্ত্রসহ তিন যুবককে আটক করেন সোনাইমুড়ী থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) গাজী সোহেল রানাসহ পুলিশের একটি দল। তারা ওই তিন যুবককে থানায় নিয়ে আসে। পরে ওই যুবকদের ছাড়াতে থানায় আসেন স্থানীয় একজন জনপ্রতিনিধিসহ কয়েকজন। তাঁরা বিষয়টি নিয়ে ওসি মো. তহিদুল ইসলামের সঙ্গে দেখা করার পর ভোর পাঁচটার দিকে আটক যুবকদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

পুলিশ সূত্র জানায়, অস্ত্রসহ তিন যুবককে আটকের পর থানা থেকে ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি জানাজানি হলে গতকাল সোমবার এ ঘটনা তদন্তে কমিটি গঠন করেন জেলা পুলিশ সুপার। প্রাথমিক তদন্তে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওসিকে প্রত্যাহারে নির্বাচন কমিশনে প্রস্তাব পাঠানো হয়। নির্বাচনকালীন প্রশাসনিক কারণে ওসিকে প্রত্যাহারের নির্দেশ দেয় নির্বাচন কমিশন।

জেলা পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম জানান, সোনাইমুড়ীর ওসি মো. তহিদুল ইসলামকে প্রত্যাহার করে তাঁর স্থলে জেলা পুলিশ কার্যালয়ের পরিদর্শক হারুন-অর-রশিদকে পদায়ন করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত তিনি সোনাইমুড়ী থানার ওসি দায়িত্ব পালন করবেন।

উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, কাল বুধবার ৫ জানুয়ারি সোনাইমুড়ী উপজেলার ১০ ইউনিয়নের পরিষদের ভোট গ্রহণ করা হবে।
আরও পড়ুন: অস্ত্রসহ আটক ৩ যুবককে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ ওসির বিরুদ্ধে

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন