বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সোনাতলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আহত অন্য ব্যক্তিরা হলেন ২ নম্বর ওয়ার্ডের পরাজিত কাউন্সিলর প্রার্থী ও পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক নাহিদ হাসান জিতু (৩৮), পৌর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক উৎপল কুমার (৩২) এবং পৌর মৎস্যজীবী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহমুদুর রশীদ সোহেল (৪০)।

বুধবার দুপুরে সোনাতলা পৌর শহরের মাইক্রোবাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিজয়ী মেয়র জাহাঙ্গীর আলম ও পরাজিত নৌকার প্রার্থী শাহিদুল বারি খানের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ দুপুর সোয়া ১২টায় সোনাতলা পৌর এলাকার মাইক্রোবাসস্ট্যান্ড এলাকায় নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থীর সমর্থক এক পানের দোকানির সঙ্গে বিজয়ী মেয়রের একজন সমর্থকের বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। বাগ্‌বিতণ্ডার একপর্যায়ে সোনাতলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিনহাদুজ্জামান নৌকার সমর্থকদের পক্ষ নিয়ে বিজয়ী মেয়রের সমর্থকের সঙ্গে বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়ান। একপর্যায়ে নৌকার সমর্থকেরা মেয়রের ওই সমর্থককে মারধর করেন।

default-image

এ খবর পেয়ে বিজয়ী মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের ভাই হীরা কয়েকজন কর্মী নিয়ে সেখানে গেলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় উভয় পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হন।

সংঘর্ষের খবর পেয়ে সেখানে মেয়র জাহাঙ্গীর আলমও মোটরসাইকেলের বহর নিয়ে উপস্থিত হলে তাঁর সঙ্গে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে মেয়রের সমর্থকেরা উপজেলা চেয়ারম্যানের ওপর হামলা করেন। এ সময় নৌকার সমর্থকেরা পৌর মেয়রের ওপর পাল্টা হামলা করেন। পরে পুলিশ গিয়ে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায় এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
উপজেলা চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়র চিকিৎসাধীন থাকায় কারও সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি। সোনাতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম বলেন, দুই পক্ষের সংঘর্ষের পর পৌর শহরে পুলিশ, র‍্যাব ও বিজিবি সদস্য মোতায়েন রয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। সংঘর্ষে বিজয়ী মেয়রও আহত হয়েছেন। তাঁকে চিকিৎসার জন্য বগুড়ায় পাঠানো হয়েছে।

গতকাল সোনাতলা পৌরসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হয়। নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীকে ২ হাজার ৭৪২ ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বর্তমান মেয়র ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম। তিনি নারকেলগাছ প্রতীকে ৭ হাজার ৯৬৩ ভোট পেয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহিদুল বারি খান নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ২২১ ভোট। মোট ভোট পড়েছে ৭৪ দশমিক ৪০ শতাংশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন