default-image

নরসিংদীর রায়পুরায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দিদার মিয়া (১৫) ও রায়হান মোল্লা (১৬) নামের দুই কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে রায়পুরা পৌর এলাকার মহিষমারায় সৌরবিদ্যুতের একটি খুঁটি স্থানান্তর করতে গিয়ে বিদ্যুতের তারের সঙ্গে লেগে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে আহত হয়েছে আরও দুই কিশোরসহ তিনজন। রায়পুরা থানার উপপরিদর্শক দেব দুলাল দে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ দুর্ঘটনায় নিহত দিদার পৌর এলাকার মহিষমারার মো. আমানউল্লাহর ছেলে ও সেরাজনগর এম এ পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী। অন্যদিকে রায়হান একই এলাকার কাজল মোল্লার ছেলে ও রায়পুরা আইডিয়াল কলেজের একাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী। আহত অন্য তিনজন হলেন মো. হাছান মিয়া (৩৫), মো. কারি (১৪) ও শামীম মিয়া (১২)।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, মহিষমারায় রাস্তার পাশে স্থাপন করা সৌরবিদ্যুতের একটি খুঁটি সম্প্রতি কাত হয়ে পড়েছিল। এতে এর ব্যাটারিতে ঠিকঠাক চার্জ না হওয়ায় রাতে আলো জ্বলছিল না। সোমবার দুপুরে স্থানীয় কয়েকজন কিশোর-যুবক মিলে সৌরবিদ্যুতের খুঁটিটি পার্শ্ববর্তী স্থানে স্থানান্তরের উদ্যোগ নেয়। খুঁটি সরানোর সময় ওপরে থাকা ১১ হাজার ভোল্টের বিদ্যুতের তারের সঙ্গে খুঁটিটির সংযোগ ঘটে। এতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয় দিদার মিয়া, রায়হান মোল্লা, হাছান মিয়া, মো. কারি ও শামীম মিয়া।

বিজ্ঞাপন

আহত ব্যক্তিদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দিদার ও রায়হানকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত অন্য তিনজনের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ার তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আহত হাছান মিয়া জানান, ‘ঘটনার সময় বাড়ি ফিরছিলাম। ওই সময় চার ছেলেকে রাস্তার পাশে সৌরবিদ্যুতের একটি খুঁটি সরাতে দেখি। ওই খুঁটি সরাতে তাদের খুব কষ্ট হচ্ছিল দেখে আমিও তাদের সঙ্গে যোগ দিই। কিন্তু ওপরে থাকা ১১ হাজার ভোল্টের বিদ্যুতের তারের সঙ্গে এটি লেগে গেলে আমরা বিদ্যুতায়িত হই এবং আমি অচেতন হয়ে পড়ি।’

রায়পুরা থানার উপপরিদর্শক দেব দুলাল দে জানান, সৌরবিদ্যুতের একটি খুঁটি স্থানান্তরের সময় ওপরে থাকা ১১ হাজার ভোল্টের বিদ্যুতের তারে লেগে বিদ্যুতায়িত হয়ে ওই দুই কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে দুই কিশোরের মৃত্যুর ঘটনায় সোমবার সন্ধ্যায় রায়পুরা থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0