default-image

নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলায় নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৫) অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। অপহরণের ১৫ ঘণ্টা পর আজ শনিবার দুপুরে উপজেলার নাটশাল এলাকা থেকে ওই স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে মহাদেবপুর থানা–পুলিশ।

ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণের অভিযোগে রাকিব হাসান (২১) নামের এক তরুণকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় আজ সকালে ওই ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে গ্রেপ্তার রাকিবসহ অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন।

ওই স্কুলছাত্রীর বাবা বলেন, ‘স্কুল ও প্রাইভেট থেকে আসা-যাওয়ার পথে আমার মেয়েকে উপজেলার শিবরামপুর গ্রামের গোলাম মোস্তফার ছেলে রাকিব হাসান প্রায়ই উত্ত্যক্ত করত। বিষয়টি নিয়ে রাকিবকে একাধিকবার সতর্কও করা হয়েছিল। গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে প্রতিবেশীর বাড়ি থেকে বাসায় ফেরার পথে রাকিব ও তাঁর লোকজন আমার মেয়েকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে উপজেলার নাটশাল গ্রামের আবদুল মান্নানের বাড়িতে আটকে রেখে আমার মেয়েকে ধর্ষণ করে রাকিব। এ ঘটনায় আজ সকালে মহাদেবপুর থানায় দুপুরে রাকিবসহ অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে আমি মামলা করেছি।’

বিজ্ঞাপন

এ অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে মহাদেবপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) এমদাদ আলীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে উপজেলার নাটশাল গ্রামের একটি বাড়ি থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে। একই স্থান থেকে মামলার এজহারভুক্ত আসামি রাকিবকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মহাদেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজম উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘গ্রেপ্তার রাকিবকে আদালতের মাধ্যমে বিকেলে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। নির্যাতনের শিকার ওই ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কাল রোববার নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন