বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলা সূত্রে জানা যায়, ওই শিক্ষার্থী স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে। সে উপজেলার মজিদবাড়িয়া ইউনিয়নের একটি এলাকায় খালার বাসায় থেকে লেখাপড়া করত। গতকাল শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মেয়েটির খালা বাসায় ছিলেন না। এ সময় সুমন খান বাসায় ঢুকে ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় মেয়েটির চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে সুমন পালিয়ে যান।

মির্জাগঞ্জ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন তালুকদার বলেন, এ ব্যাপারে মির্জাগঞ্জ থানায় ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মামলা হয়েছে। আসামি পলাতক। তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জহিরুল ইসলাম জুয়েল সিকদার প্রথম আলোকে বলেন, ‘ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে অভিযোগ জেনেছি। ঘটনার সত্যতা মিললে অবশ্যই তাঁর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন