বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নাটোর সদর থানা–পুলিশ সূত্রে জানা যায়, হাসান আলী সদর উপজেলার ঋষি নওগাঁ গ্রামের বাসিন্দা। দীর্ঘদিন ধরে সাংসারিক নানা সমস্যা নিয়ে স্বামী–স্ত্রী মধ্যে মনোমালিন্য চলছিল। আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়। একপর্যায়ে ক্ষিপ্ত হয়ে হাসান আলী তাঁর স্ত্রী রাশিদা বেগমকে ধারালো দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকেন। রাশিদার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে হাসান আলী বাড়ি থেকে চলে যান। গুরুতর আহত অবস্থায় রাশিদাকে উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ঘটনার প্রায় দেড় ঘণ্টা পর গ্রামের একটি ঔষধি গাছের বাগানের মধ্যে হাসান আলীকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। পাশে একটি বিষের বোতল পড়ে ছিল। স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুরে তাঁর মৃত্যু হয়। বিষপানে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নাটোর সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) মঞ্জুর রহমান বলেন, রাশিদা বেগমের মাথাসহ শরীরের একাধিক জায়গায় গুরুতর জখম আছে। এ জন্য তাঁকে রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাঁর স্বামী হাসান আলী চিকিৎসারত অবস্থায় মারা গেছেন

নাটোর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুনসুর রহমান বলেন, স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিরোধ থেকে এই ঘটনা ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন