default-image

বিয়ে হয়েছে সবে দুই মাস হয়েছে। নববধূ মোর্শেদা আক্তারকে (২১) সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছিলেন মকছেদ আলী (২৮)। কিন্তু পথেই সে যাত্রা সাঙ্গ হয়েছে। একটি পাথরবোঝাই ট্রাক তাঁর মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে সড়কে ছিটকে ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে পঞ্চগড় সদর উপজেলার ধাক্কামারা ইউনিয়নের খোলাপাড়া এলাকায় পঞ্চগড়-ঢাকা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এদিকে মুমূর্ষু অবস্থায় স্ত্রী মোর্শেদাকে ভর্তি করা হয়েছে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে। পরে সেখানে তাঁর অবস্থার অবনতি হলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

প্রায় দুই মাস আগে মকছেদের সঙ্গে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার কাজলদীঘি কালীগঞ্জ ইউনিয়নের পানিডুবি গ্রামের মোজাম্মেল হকের মেয়ে মোর্শেদা আক্তারের বিয়ে হয়।

নিহত মকছেদ ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈল উপজেলার ধর্মগড় ইউনিয়নের ভদ্রেশ্বরী কলোনি এলাকার আবদুল কুদ্দুসের ছেলে। প্রায় দুই মাস আগে মকছেদের সঙ্গে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার কাজলদীঘি কালীগঞ্জ ইউনিয়নের পানিডুবি গ্রামের মোজাম্মেল হকের মেয়ে মোর্শেদা আক্তারের বিয়ে হয়।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিকেলে মকছেদ তাঁর স্ত্রীকে নিয়ে ঠাকুরগাঁও থেকে পঞ্চগড়ে শ্বশুরবাড়ি যাচ্ছিলেন। এ সময় খোলাপাড়া এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি পাথরবোঝাই ট্রাক প্রথমে তাঁদের মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে স্বামী-স্ত্রী ছিটকে পড়েন। এ সময় ট্রাকের চাকা মকছেদের মাথা চাপা দিয়ে গেলে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁর স্ত্রী মোর্শেদাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পরে মকছেদের পকেটে থাকা মুঠোফোনের সূত্র ধরে তাঁর স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করে পরিচয় নিশ্চিত করে পুলিশ। ঘটনার পর ট্রাকটি ফেলে চালক ও তাঁর সহকারী পালিয়ে গেছেন।

পাথরবোঝাই ট্রাক প্রথমে তাঁদের মোটরসাইকেলটিকে ধাক্কা দিলে স্বামী-স্ত্রী ছিটকে পড়েন। এ সময় ট্রাকের চাকা মকছেদের মাথা চাপা দিয়ে গেলে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

মকছেদের ভাগনে জাহাঙ্গীর আলম মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, বেলা দেড়টার দিকে তাঁর মামা (মকছেদ) মামিকে নিয়ে শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হন। পরে বিকেল পৌনে পাঁচটার দিকে তাঁরা মুঠোফোনে মকছেদ দুর্ঘটনায় মারা যাওয়ার খবর পান।

পঞ্চগড় সদর থানার উপপরিদর্শক ভবেশ চন্দ্র পাল বলেন, দুর্ঘটনার পর লাশের পকেটে থাকা মুঠোফোনের সূত্র ধরেই তাঁর স্বজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। নিহতের লাশ পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়। এ ছাড়া ট্রাকটি আটক করা হয়। এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য করুন