বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলার বিচার শুরুর ৯ কার্যদিবসের মধ্যে রায় ঘোষণা করা হলো। রায় ঘোষণার সময় আসামি রফিক শেখ আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন এনামুল হক। তিনি বলেন, ২০২০ সালের ১২ আগস্ট রূপসার নৈহাটি ইউনিয়নের নেহালপুর গ্রামে থাকা রফিক শেখের বাড়ি থেকে মরিয়ম বেগম নিখোঁজ হন। এরপর ১৫ আগস্ট রূপসা উপজেলার নৈহাটি ইউনিয়নের দেবীপুর গ্রামের একটি পানের বরজের গর্ত থেকে তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। মাথায় আঘাত করে হত্যার পর লাশের পরিচয় গোপন করতে পেট্রল দিয়ে আগুনে পুড়িয়ে লাশ গুম করার জন্য ওই স্থানে ফেলে রাখা হয়।

ওই ঘটনার পরের দিন নিহতের মা জালিমা বেগম বাদী হয়ে রফিক শেখকে প্রধান আসামি ও অজ্ঞাত চার থেকে পাঁচজনকে আসামি করে রূপসা থানায় মামলা করেন। পরে পুলিশ রফিক শেখকে গ্রেপ্তার করে। তিনি আদালতে দোষ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। স্বীকারোক্তিতে তিনি বলেছিলেন, মুঠোফোনে অতিরিক্ত কথা বলার কারণে তাঁদের মধ্যে পারিবারিক বিরোধ লেগেই থাকত। এর সূত্র ধরে মরিয়ম বেগমকে হত্যা করেন তিনি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ওই থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাহাবুদ্দিন গাজী ওই বছরের ৩১ ডিসেম্বর রফিক শেখকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলায় মোট ১৫ সাক্ষীর মধ্যে ১৩ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন