বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মো. মিলন মাহমুদ আরও বলেন, হত্যার শিকার ফরিদ উদ্দিন ও সালাউদ্দিন দুজন বন্ধু ছিলেন। সালাউদ্দিন দুই বিয়ে করায় তিনি মাঝেমধ্যে তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে চট্টগ্রামে থাকতেন। এ সময় সালাউদ্দিনের প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে ফরিদ অনৈতিক সম্পর্কে জড়াতেন বলে তিনি সন্দেহ করেন। তা ছাড়া ঘটনার দিন রাতে ফরিদের মানিব্যাগে ১০ হাজার টাকা দেখতে পান সালাউদ্দিন। টাকার লোভ ও সন্দেহের বশবর্তী হয়ে সালাউদ্দিন তাঁর সহযোগীকে নিয়ে হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা করেন। ধারালো দা দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে ফরিদকে হত্যা করে পালিয়ে যান তাঁরা।

পুলিশ সুপার বলেন, এ ঘটনায় ফরিদ উদ্দিনের বোনের জামাই দুলাল চৌধুরী গত শনিবার অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে ফরিদগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন