বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত তিন বছরে তিনবার বদল হয়েছে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক। বদরুজ্জামান যুক্তরাজ্যে চলে যাওয়ার পর যুগ্ম সম্পাদক আজমল বক্ত চৌধুরী ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হন। কয়েক দিন পর পারিবারিক কাজে আজমল যুক্তরাষ্ট্রে চলে যাওয়ার পর শামীম সিদ্দিকী ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পান। পরে তিনিও যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি দেওয়ায় সাংগঠনিক কার্যক্রমে স্থবিরতা ও নেতৃত্বে শূন্যতা দেখা দেয়।
কেন্দ্রীয় বিএনপির একটি সূত্র জানায়, সাধারণ সম্পাদকের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে এ রকম রদবদলে টানা তিন বছর ধরে সাংগঠনিক কার্যক্রমে স্থবিরতা দেখা দেয়। এর মধ্যে মহানগর কমিটির মেয়াদ পেরোনোর দুই বছর পর গত ২৯ সেপ্টেম্বর কেন্দ্র থেকে নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়।

রোববার এই আহ্বায়ক কমিটির নেতারা মাজার জিয়ারত করে দলীয় কর্মীদের উপস্থিতি দেখে তাঁরা শোভাযাত্রা করেছেন বলে স্থানীয় নেতা-কর্মীরা জানিয়েছেন। মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক ও সদস্যসচিব ছাড়াও শোভাযাত্রায় বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সহক্ষুদ্রঋণবিষয়ক সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রাজ্জাক, আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক আবদুল সালামসহ মহানগরের আহ্বায়ক কমিটি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

দরগাহ এলাকায় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বক্তব্য দেন আহ্বায়ক ও সদস্যসচিব। এরপর দরগাহ গেট থেকে নগরীর চৌহাট্টা মোড়ে গিয়ে সেখানে তাঁদের দুজনের বক্তব৵ দেওয়ার মধ্য দিয়ে শেষ করা হয় শোভাযাত্রা।

স্থবিরতা কাটিয়ে সচল হওয়া প্রসঙ্গে নগর বিএনপির সদস্যসচিব মিফতাহ সিদ্দিকী প্রথম আলোকে বলেন, দল পুনর্গঠনের সঙ্গে দলীয় নেতা–কর্মীদের বিরুদ্ধে দমন–পীড়নের তাৎক্ষণিক প্রতিবাদে এখন থেকে সোচ্চার থাকবে সিলেট মহানগর বিএনপি। এ ক্ষেত্রে আগে স্থবিরতা ভর করেছিল বলে জানিয়েছেন তৃণমূলের কর্মীরা।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর বিএনপির কেন্দ্রীয় দপ্তরের চলতি দায়িত্বে থাকা সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে সিলেট মহানগর বিএনপির নতুন আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। এতে বিলুপ্ত কমিটির জ্যেষ্ঠ সহসভাপতির দায়িত্ব পালন করা আবদুল কাইয়ূম জালালীকে আহ্বায়ক ও সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে থাকা মিফতাহ সিদ্দিকীকে সদস্যসচিব মনোনীত করা হয়। ২০১৬ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি কাউন্সিলরদের সরাসরি ভোটে দুই বছর মেয়াদি মহানগরের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন