default-image

মেহেরপুরের গাংনী পৌর নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান মেয়র আশরাফুল ইসলামের গাড়িবহরে হামলা চালিয়ে কর্মীদের মারধর ও তাঁর ব্যক্তিগত রিভলবার ছিনিয়ে তিনটি গুলি ছোড়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ সোমবার বেলা দুইটার দিকে গাংনী পৌরসভার শিশিরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ওই হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান মেয়র আশরাফুল ইসলাম ও তাঁর পাঁচ কর্মী এবং আওয়ামী লীগ প্রার্থীর চার কর্মী আহত হয়েছেন। হামলাকারীরা স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল ইসলামের ব্যক্তিগত রিভলবার ছিনিয়ে নিয়ে ফাঁকা গুলি করে পালিয়ে যান বলে তিনি অভিযোগ করেন।

আশরাফুল ইসলাম বলেন, সোমবার দুপুরে তিনি ও তাঁর সমর্থকেরা শিশিরপাড়ায় নির্বাচনী প্রচারে গেলে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আহম্মেদ আলীর সমর্থকেরা অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাঁকেসহ ছয়জনকে আহত করেন। এ সময় আওয়ামী লীগের হামলাকারীরা তাঁর কাছে থাকা নয়টি গুলিসহ ব্যক্তিগত রিভলবার (৭.৬ ক্যালিবার) ছিনিয়ে নিয়ে ফাঁকা গুলি করে পালিয়ে যান। এ ঘটনায় তিনি গাংনী থানায় অস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগে একটি মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

বিজ্ঞাপন

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আহম্মেদ আলী বলেন, তিনি (আশরাফুল) কী করে অস্ত্র নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা করেন। নির্বাচন কমিশিন তাঁর বিরুদ্ধে এখনো কেন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। ভোটারদের অস্ত্র দিয়ে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন আশরাফুল।

আহত ব্যক্তিদের কয়েকজনকে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর কর্মী নাজমুল হোসেন (৩৫), উজ্জ্বল হোসেন (২৫) ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক রোকনুজ্জামানকে (২৫) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বজলুর রহমান বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

গাংনী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবদুল আজিজ বলেন, পৌর নির্বাচনে সব প্রার্থীর প্রচারণা নির্বিঘ্নে করার লক্ষ্যে পুলিশকে আরও সতর্ক ভূমিকা পালনে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন