default-image

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার ৫০ শয্যার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একমাত্র এক্স-রে যন্ত্রটি ১৩ বছর ধরে বিকল হয়ে পড়ে আছে। এ কারণে রোগীদের বিভিন্ন বেসরকারি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে গিয়ে অতিরিক্ত টাকা খরচ করে প্রয়োজনীয় এক্স-রে করাতে হচ্ছে। এতে নিম্ন আয়ের পরিবারের রোগীর স্বজনদের দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে। অন্যদিকে সরকারি সেবা থেকেও বঞ্চিত হচ্ছে তারা।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে বরাদ্দ পাওয়া (৫০ এমএম ক্ষমতাসম্পন্ন) এক্স-রে যন্ত্রটি ২০০৮ সালের ১১ জুলাই কাজ করার সময় বিকল হয়ে যায়। পরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে প্রকৌশলী এনে চেষ্টা করেও যন্ত্রটি সচল করা যায়নি। তখন থেকেই এক্স-রে যন্ত্রটি অচল হয়ে পড়ে আছে। এরপর আর নতুন এক্স-রে বরাদ্দ হয়নি।

বিজ্ঞাপন

হাসপাতালের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, নতুন এক্স-রে যন্ত্র পাওয়ার জন্য গত ১০ বছরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সিএমএসডির পরিচালকের কাছে অন্তত ১০টি চিঠি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কোনো কাজ হয়নি।

হাসপাতাল প্রাঙ্গণে গড়গাঁও গ্রামের বাসিন্দা ও ভ্যানচালক আব্বাস আলী (৫০) বলেন, হাসপাতালের যন্ত্র বিকল থাকায় বাইরে থেকে সাড়ে চার শ টাকায় এক্স-রে করাতে হয় তাঁকে।

হাসপাতালে এই ফির পরিমাণ ৫০ থেকে ৭০ টাকা। ভারপ্রাপ্ত উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবদুল জব্বার বলেন, গত বছরের শুরুতে হাসপাতালে এক্স-রে যন্ত্র দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখনো তার কোনো খবর নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন