বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এলাকার লোকজন আরও বলেন, প্রতিদিন উপজেলা সদর থেকে ভ্যানগাড়ি, মোটরসাইকেল, মাইক্রোবাসসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচল করে। বুড়িমারী স্থলবন্দর থেকেও পণ্যবাহী গাড়ি, কাভার্ড ভ্যান, দূরপাল্লার কোচ ছেড়ে আসে। পাশাপাশি একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও একটি কলেজের শিক্ষার্থীরা এ পথ দিয়ে যাতায়াত করে। তাই গাছ দুইটি অপসারণ করা জরুরি।

ট্রাকচালক আসলাম মিয়া বলেন, গাছ দুইটি দুই দিক দিয়ে যেভাবে হেলে আছে, তাতে গাছের নিচ দিয়ে পণ্যবাহী ট্রাক নিয়ে যাওয়ার সময় ভয়ে থাকতে হয়। কাভার্ড ভ্যানের চালক নারায়ণ চন্দ্র বলেন, একটি বাস ১২-১৫ ফুট পর্যন্ত উঁচু হতে পারে। আর একটি পণ্যবোঝাই ট্রাক বা কাভার্ড ভ্যান ১৫-২৫ ফুট পর্যন্ত উঁচু হতে পারে। গাছগুলো হেলে থাকায় তাঁরা ভয়ে ভয়ে গাড়ি চালান।

লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী খালিদ সাইফুল্লাহ সরদার বলেন, গাছগুলো জেলা পরিষদের আওতায়। তাই আলোচনা করে মহাসড়কের ওপর ওই ঝুঁকে পড়া গাছ দুইটি কেটে ফেলার ব্যবস্থা করবেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন