বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত কাইয়ুম আলীর পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, প্রতিদিনের মতো গতকালও কাইয়ুম মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন। কাইয়ুম রাত সাড়ে ১০টার দিকে মুঠোফোনে তাঁর মেয়ের জামাইয়ের সঙ্গে কথা বলেন। কাইয়ুম রাতে আর বাড়ি ফেরেননি।

এরপর আজ সকাল আটটার দিকে স্থানীয় লোকজন সৈয়দপুর-সাতমাইলগামী সড়কের পাশে কাইয়ুম আলীর গলাকাটা লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

যশোর জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রুপণ কুমার সরকার বলেন, ঘটনার পর থেকে নিহত কাইয়ুমের মোটরসাইকেলটি খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। এ জন্য ধারণা করা হচ্ছে মোটরসাইকেল ছিনতাইয়ের পর তাঁকে গলাকেটে হত্যা করা হয়েছে। নিহত কাইয়ুম আলীর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য যশোরের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের ধরতে ডিবি ও থানা পুলিশ যৌথভাবে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন