default-image

ময়মনসিংহের নান্দাইল পৌরসভার একটি বিলের মাঝখানে মডেল থানা-পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযান চলছিল। এ সময় সড়কের পাশে রেখে যাওয়া পুলিশের একটি মোটরসাইকেল তালা ভেঙে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন এক ব্যক্তি। সঙ্গে সঙ্গে ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

থানা-পুলিশ সূত্র জানায়, আটক ব্যক্তির নাম মো. ফজলুর রহমান (৪০)। তাঁর বাড়ি কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার গৌরীপুর গ্রামে। পুলিশ সূত্র জানায়, পৌরসভার কান্দাপাড়া মহল্লার একটি বিলে মাদক বেচাকেনা হচ্ছে, গোপন সূত্রে এমন খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়ক ধরে ঘটনাস্থলে যায়। এ সময় সড়কের পাশে মোটরসাইকেল দাঁড় করিয়ে সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) দিলীপ কুমার বিলের ভেতরে অনেকটা পথ হেঁটে ঘটনাস্থলে যান। কিন্তু পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যান।

এএসআই দিলীপ কুমার দেখেন, তালা ভেঙে এক লোক তাঁর মোটরসাইকেলটি নিয়ে চলে যাচ্ছেন। তিনি চোর চোর বলে চিৎকার দিতে দিতে দৌড়ে ওই লোককে ধরে ফেলেন। এ সময় চোরের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হলে চারপাশ থেকে লোকজন ছুটে এসে চোরকে আটক করেন।
বিজ্ঞাপন

অভিযান ব্যর্থ হওয়ার পর অনেকটা পথ ঘুরে এএসআই দিলীপ কুমার নিজ মোটরসাইকেলের কাছে ফিরে আসছিলেন। এ সময় তিনি দেখতে পান, তালা ভেঙে এক লোক তাঁর মোটরসাইকেলটি নিয়ে চলে যাচ্ছেন। তিনি চোর চোর বলে চিৎকার দিতে দিতে দৌড়ে ওই লোককে ধরে ফেলেন। এ সময় চোরের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হলে চারপাশ থেকে লোকজন ছুটে এসে ফজলুর রহমান নামের ওই ব্যক্তিকে আটক করেন। ধস্তাধস্তির সময় ফজলুর কিছুটা আহত হন। পরে তাঁকে নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে পুলিশ পাহারায় ওই ‘চোর’ সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এএসআই দিলীপ কুমার জানান, তালা ভেঙে মোটরসাইকেল চুরি করে পালানোর ঘটনার সঙ্গে আরও কেউ জড়িত রয়েছেন কি না, তা জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা করার প্রক্রিয়া চলছে।

মন্তব্য পড়ুন 0