default-image

নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের পুরাতন বাবুপাড়া এলাকায় বিদ্যুতের দাবিতে এলাকাবাসীর সড়ক অবরোধের পর বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হয়েছে। আজ সোমবার বেলা দুইটার পর থেকে সরবরাহ স্বাভাবিক করে নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেড (নেসকো)। এর আগে রোববার সারা দিন বিদ্যুৎ–সংযোগ না থাকায় রাত নয়টার দিকে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন এলাকাবাসী।

বিজ্ঞাপন

শহরের পুরাতন বাবুপাড়া রোস্তম মোড় এলাকার সড়ক অবরোধ করে ওই কর্মসূচি পালিত হয়। এ সময় সৈয়দপুর টার্মিনাল থেকে পাঁচ মাথা মোড় পর্যন্ত উভয় পাশের প্রায় দেড় কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজট দেখা দেয়। এলাকাবাসীর অভিযোগ, শহরের পুরাতন বাবুপাড়া ও অফিসার্স কলোনি এলাকায় রোববার সারা দিন বিদ্যুৎ–সংযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল। তাঁরা বারবার বিদ্যুৎ অফিসে যোগাযোগ করলেও এ সমস্যার সমাধান করা হয়নি। সন্ধ্যার দিকে এলাকার একটি ট্রান্সফরমারে আগুন লাগে। এ সময় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এলেও নেসকোর কেউ আসেননি। আগুন লাগার ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। তাই দ্রুত সমস্যার সমাধানের দাবিতে তাঁরা সড়ক অবরোধ করেন।

বিজ্ঞাপন

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে ট্রান্সফরমারের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলে এলাকাবাসী সড়কে অবস্থান নেন। এক ঘণ্টা ধরে অবরোধ কর্মসূচি চলার পর সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসনাত খান বিদ্যুৎ অফিসে যোগাযোগ করেন। এরপর বিদ্যুৎ কর্মীরা একটি পিকআপ ভ্যান নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে সমস্যার সমাধান না করে উল্টো কয়েকটি তার কেটে দিয়ে ফিরে যাওয়ার উদ্যোগ নেন। তখন বিক্ষুব্ধ জনতা আরও বেশি উত্তেজিত হয়ে বিদ্যুৎ কর্মীদের গাড়ি আটকে দেন। একপর্যায়ে জনতা স্লোগান দিতে শুরু করলে বিদ্যুৎ কর্মীরা পিকআপ রেখেই চলে যান। পরে সৈয়দপুর পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-২ শাহিন আকতার শাহীন ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

বিজ্ঞাপন

নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানি লিমিটেডের (নেসকো) সৈয়দপুর বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী তাজমুল হক বলেন, একসঙ্গে সব জায়গায় সমস্যা হলে সমাধান করতে একটু সময় লাগে। পুরাতন বাবুপাড়ার বিদ্যুৎ ট্রান্সফরমার নষ্ট হয়েছিল। এ জন্য সংযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল।

মন্তব্য পড়ুন 0