টঙ্গীর স্টেশন রোড এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে দুই ঘণ্টারও বেশি সময় বিক্ষোভ করে স্থানীয় আ. লীগের পদবঞ্চিত নেতা-কর্মী ও তাদের সমর্থকেরা। এতে যানজটের সৃষ্টি হয়
টঙ্গীর স্টেশন রোড এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে দুই ঘণ্টারও বেশি সময় বিক্ষোভ করে স্থানীয় আ. লীগের পদবঞ্চিত নেতা-কর্মী ও তাদের সমর্থকেরা। এতে যানজটের সৃষ্টি হয়প্রথম আলো

গাজীপুর মহানগর ওয়ার্ড কমিটি বাতিলের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের পদবঞ্চিত নেতা-কর্মী ও তাঁদের সমর্থকেরা। আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে গাজীপুরের টঙ্গীর স্টেশন রোড এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে দুই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে চলে এ বিক্ষোভ। এতে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক, টঙ্গী-ঘোড়াশাল আঞ্চলিকসহ আশপাশের সব সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে ভোগান্তির সৃষ্টি হয়।

বিক্ষোভকারী ও স্থানীয় কয়েকজন নেতা-কর্মী জানান, সম্প্রতি গাজীপুর মহানগরের ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটি দেওয়া হচ্ছে। পুরো মহানগর এলাকায় মোট ৫৭টি ওয়ার্ড। এর মধ্যে ৩৯টি ওয়ার্ডে কমিটি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এসব কমিটিতে দলের বেশির ভাগ ত্যাগী ও নিবেদিত নেতা-কর্মী নেই বলে দাবি তাঁদের। তা ছাড়া কমিটিও ঘোষণা করা হচ্ছে কোনো আলোচনা ছাড়াই। এসব কারণে ঘোষিত কমিটি বাদ দিয়ে পুনরায় কমিটি দেওয়ার দাবি জানিয়ে আসছিলেন নেতা-কর্মীরা। কিন্তু তাতেও কোনো কাজ না হওয়ায় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন তাঁরা।

বিজ্ঞাপন

সরেজমিনে দেখা যায়, কমিটি বাতিলের দাবিতে দুপুর থেকেই মিছিল নিয়ে দলে দলে নেতা–কর্মীরা জড়ো হতে থাকেন টঙ্গীর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে। এরপর বেলা সাড়ে তিনটার দিকে সেখান থেকে জড়ো হন টঙ্গীর স্টেশন রোড এলাকায় ঢাকা–ময়মনসিংহ মহাসড়কে। তাঁরা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। এতে ঢাকা ময়মনসিংহ-মহাসড়ক, টঙ্গী-ঘোড়াশাল আঞ্চলিকসহ আশপাশের সব সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। নেতা-কর্মীদের হাতে ছিল ব্যানার, ফেস্টুন। তাঁরা কমিটি বাতিলের দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন।
৫০ নম্বর ওয়ার্ডের সম্প্রতি বিলুপ্ত কমিটির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন জামাল। নতুন কমিটিতে তাঁকে রাখা হয়নি। তিনি অভিযোগ করেন, ‘কেন্দ্রীয়ভাবে দলের ত্যাগী নেতা-কর্মীদের প্রাধান্য দিতে বলা হয়েছে। কিন্তু বর্তমান কমিটিতে সে নির্দেশনা মানা হয়নি। ত্যাগীদের বাদ দিয়ে অনুপ্রবেশকারীদের প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। আমরা চাই, যে করেই হোক ত্যাগীদের দলে রেখে কমিটি গঠন করা হোক।’

বিজ্ঞাপন
default-image

নেতা-কর্মীরা সড়কে অবস্থান করায় দুই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে যান চলাচল বন্ধ থাকে। এতে ব্যাপক ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ মানুষ। অনেকে হেঁটেই রওনা দেন গন্তব্যে। এ ব্যাপারে গাজীপুর মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (ট্রাফিক, দক্ষিণ) পীযূষ কুমার দে প্রথম আলোকে বলেন, ‘নেতা-কর্মীরা সড়ক অবরোধ করে রাখায় প্রায় দেড় ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। আমরা তাদের সড়কে থেকে সরিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক করি।’

মন্তব্য পড়ুন 0