স্বজন, পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার বিকেলে আরিফ হোসেন তাঁর বাবা আবদুল আজিজকে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেলে চাকলাহাট থেকে হাড়িভাসা-চাকলাহাট সড়ক দিয়ে বাড়িতে ফিরছিলেন। হঠাৎ ঝড়-বৃষ্টি শুরু হওয়ায় সড়ক কিছুটা ফাঁকা ছিল। বৃষ্টি কমে যাওয়ার পর স্থানীয় লোকজন সড়কের ওপর যুবক আরিফকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। পাশেই কাতরাচ্ছিলেন বৃদ্ধ আবদুল আজিজ। স্থানীয় লোকজন পুলিশকে খবর দেন। পুলিশ এসে ঘটনাস্থল থেকে আরিফের লাশ উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। আর গুরুতর আহত অবস্থায় আবদুল আজিজকে উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

পঞ্চগড় সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ভবেশ চন্দ্র পাল বলেন, ঘটনার সময় ঝড়-বৃষ্টি চলায় কীভাবে ওই ঘটনা ঘটেছে, তা কেউ পরিষ্কার করে বলতে পারছেন না। তবে কোনো ট্রাক্টরচালক তাঁদের ধাক্কা দিয়ে পালিয়েছেন বলে ধারণা করছেন স্থানীয় লোকজন। সে হিসেবেই তদন্ত করা হচ্ছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।