বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার পিয়ারপুর ইউনিয়নের আমদহ গ্রামে মাহবুব খানকে কুপিয়ে জখম করা হয়। রাত ১২টা ৫০ মিনিটে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে মাহবুবের মৃত্যু হয়। নিহত মাহবুব আমদহ গ্রামের এনামুল হকের ছেলে। তিনি উপজেলা জাসদ যুব জোটের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

এ ঘটনার প্রতিবাদে ঢাকায় আয়োজিত মানববন্ধনে শিরীন আখতার বলেন, ‘মাহবুব খান তাঁর এলাকায় সব ধরনের অন্যায় ও অত্যাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদী ছিলেন। এলাকার মাদক, সন্ত্রাস, খুন, নির্যাতনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতেন। প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর রুখে দিতেই মাহবুবকে ঠান্ডা মাথায় খুন করা হয়েছে।’ যেসব চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাহবুবকে হত্যা করেছে এবং যারা এই হত্যাকাণ্ডের ইন্ধন জুগিয়েছেন, তাঁদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান শিরীন আখতার।

জাতীয় যুব জোটের সভাপতি রোকনুজ্জামান রোকনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন জাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফজাল হোসেন খান, সাখাওয়াত হোসেন, নইমুল আহসান, সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আলীম, জাতীয় যুব জোটের সহসভাপতি কাজী সালমা সুলতানা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ সামসুল ইসলাম, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জাসদ) কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি রাশিদুল হক প্রমুখ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন