default-image

হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার দ্বিগম্বর বাজারের একটি বাসা থেকে আজ বৃহস্পতিবার সকালে অঞ্জলি দাস (৩৫) ও পূজা দাস (৮) নামের মা-মেয়ের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশের ধারণা, এটি হত্যাকাণ্ড।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বাহুবল উপজেলার লামাপুটিজুরি গ্রামের সন্দ্বীপ দাস তাঁর স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে উপজেলার দ্বিগম্বর বাজারের একটি ভবনের তৃতীয় তলায় ভাড়া থাকতেন। তিনি পেশায় কাঁচামাল ব্যবসায়ী। সন্দ্বীপ গতকাল বুধবার রাতে ব্যবসার কাজে সুনামগঞ্জে ছিলেন। তিনি আজ ভোরে বাসায় এসে দেখেন, বাসার দরজা খোলা। মেঝেতে পড়ে আছে স্ত্রী ও মেয়ের গলাকটা লাশ। তাঁর চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে যান।

খবর পেয়ে বাহুবল থানা-পুলিশ ও বাহুবল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার পারভেজ আলম চৌধুরী আজ সকালে ঘটনাস্থলে যান। পুলিশ লাশের সুরতহাল সম্পন্ন করে হবিগঞ্জের ২৫০ শয্যার জেলা সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠিয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য।

সন্দ্বীপ দাসের ভাষ্য, গতকাল রাত তিনটার দিকে তাঁর প্রতিবেশী আমির আলী তাঁকে ফোন করে বলেন যে তাঁর বাসায় চুরি হয়েছে। চোরের দল তাঁর বাসা থেকে সেলাই মেশিন নিয়ে গেছে। তিনি আহত হয়েছেন। আমির আহত অবস্থায় হাসপাতালে থাকায় তাঁকে তিনি সন্দেহের চোখে দেখছেন।

বাহুবল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, এটি হত্যাকাণ্ড। কী কারণে এ ঘটনা ঘটেছে, কারা এর সঙ্গে জড়িত; পুলিশ তদন্ত করে দেখছে। লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন