বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পরে সেখানে অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে সভাপতির বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদার। এ সময় তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা নিশ্চিতে দ্রুত বিদেশ পাঠানোর দাবিতে হবিগঞ্জ বিএনপি আয়োজিত শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলা ও নির্বিচার গুলিবর্ষণ আওয়ামী ফ্যাসিবাদের নগ্ন বহিঃপ্রকাশ। সরকার দেশে একদলীয় বাকশাল কায়েম করতে সরকারি বাহিনীকে দলীয় লাঠিয়াল বাহিনী হিসেবে ব্যবহার করছে।

কামরুল হুদা জায়গীরদার বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কিছু অত্যুৎসাহী কর্মকর্তা কোনো কারণ ছাড়াই বিএনপি নেতা–কর্মীদের ওপর গুলিবর্ষণ করেই ক্ষান্ত হননি, আহত নেতা–কর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেপ্তার ও হাজারো নেতা-কর্মীকে আসামি করে ষড়যন্ত্রমূলক মামলা করেছেন। তাঁরা এর মাধ্যমে দেশের রাজনৈতিক ময়দানকে উত্তপ্ত করে বিরোধী নেতা–কর্মীদের হামলা, মামলা ও নির্যাতনের পথ প্রশস্ত করছেন।

কর্মসূচিতে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আবুল কাহের চৌধুরী, আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী, ফখরুল ইসলাম, সামিয়া বেগম চৌধুরী, মাহবুবুর রব চৌধুরী, হাসান আহমদ পাটোয়ারী, আবদুল আহাদ খান জামাল, মাহবুবুল হক চৌধুরী, আবুল কাশেম, শামীম আহমদ, সদর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক এ কে এম তারেক কালাম, বিএনপি নেতা শহীদ আহমদ, কামরুল হাসান চৌধুরী, আ ফ ম কামাল, জাকির হোসেন, হাবিবুর রহমান, আবদুল মালেক, জেলা যুবদলের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মুমিনুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন