বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত ২৮ ডিসেম্বর দুপুরে শহরের টাউনহল এলাকায় সদর হাসপাতালের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট সাইফুল ইসলামকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে দুর্বৃত্তরা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় ৩০ ডিসেম্বর থানায় একটি হত্যা মামলা হয়।

এ ঘটনার প্রতিবাদে হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেলা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা আন্দোলনে নামেন। তাঁরা এই হত্যাকাণ্ডের বিচার চেয়ে পুলিশ প্রশাসনকে আসামি ধরতে ৪৮ ঘণ্টা সময় বেঁধে দেন।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুক আলী বলেন, ঘটনায় সুমন জড়িত আছে বলে পুলিশ প্রমাণ পেয়েছে। তিনি ঘটনার সময় পাশের একটি দোকানে অবস্থান করছিলেন। এই হত্যাকাণ্ডের ক্লু এখন পুলিশের হাতে। সুমন গ্রেপ্তার হওয়ায় এ মামলার অগ্রগতি হলো।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন