বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ কিছুটা কমে যাওয়ায় গত ১৩ জুন বিশ্ববিদ্যালয়ে সশরীর পরীক্ষা নেওয়া শুরু হয়। এর মধ্যে কুমিল্লায় সংক্রমণ বেড়ে গেলে পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। পরে শিক্ষার্থীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ৯ সেপ্টেম্বর থেকে পুনরায় স্নাতকোত্তর ও স্নাতক (সম্মান) চতুর্থ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা শুরু হয়েছে। আজ সোমবার পর্যন্ত স্নাতকের ১৪টি ও স্নাতকোত্তর শ্রেণির ১৫টি পরীক্ষা হয়। আগামী ১০ অক্টোবর পর্যন্ত ওই পরীক্ষা চলবে। এরই মধ্যে তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা নেওয়ারও চেষ্টা করছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নুরুল করিম চৌধুরী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯টি বিভাগের মধ্যে আইন বিভাগ, গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ ব্যতীত ১৭ বিভাগে পরীক্ষা হচ্ছে। তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা নেওয়া হবে ২০ সেপ্টেম্বরের পরে।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. মাহবুবুল হক ভূঁইয়া বলেন, স্নাতকোত্তর পর্যায়ের কোর্স শেষ না হওয়ায় ১ অক্টোবর থেকে পরীক্ষা হবে।

ক্যাম্পাস খোলার বিষয়ে উপাচার্য এমরান কবির চৌধুরী বলেন, এখন পর্যন্ত স্নাতক চতুর্থ বর্ষ ও স্নাতকোত্তর শ্রেণির পরীক্ষা হচ্ছে। তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে। এক সপ্তাহ পরে সেটি হবে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতি আরও ভালো না হলে ক্যাম্পাস খোলা হবে না। পরিস্থিতি বুঝে ক্যাম্পাস খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে সশরীর স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা হচ্ছে। হাত ধোয়ার জন্য বেসিন বসানো হয়েছে। মাস্ক ছাড়া কাউকে ঢুকতে দেওয়া হয় না। শিক্ষার্থীদের হ্যান্ড স্যানিটাইজারও দেওয়া হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন