default-image

নেত্রকোনার খালিয়াজুরি উপজেলায় একটি হাওরে খলা ঘরে (ধানকাটার শ্রমিকদের অস্থায়ী ঘর) আগুন লেগে শ্রমিকদের অর্জিত ধান, টাকাসহ সবকিছু পুড়ে গেছে। এতে তাঁরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। আজ সোমবার বিকেলে উপজেলার নগর ইউনিয়নের নয়াগাঁও এলাকার হাওরে এই ঘটনা ঘটে।

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা ও উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, তিন সপ্তাহ ধরে খালিয়াজুরির অন্তত ৮৯টি হাওরে বোরো ধান কাটা শুরু হয়েছে। স্থানীয়দের পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে শ্রমিকেরা এসে এসব ধান কাটছেন। জমির মালিকদের ধান কেটে দেওয়ার বিনিময়ে শ্রমিকেরা ভাগে নির্দিষ্ট পরিমাণ ধান পান। এসব ধান তাঁরা হাওরে একটি অস্থায়ী ঘর তৈরি করে বসবাসসহ সংরক্ষণ করে থাকেন। আবার ব্যবসায়ীদের কাছে ধান বিক্রিও করে থাকেন।

উপজেলার নগর ইউনিয়নের নয়াগাঁও এলাকায় হাওরে ময়মনসিংহের নান্দাইল থেকে প্রায় ২০ জনের একটি দল দুই সপ্তাহ ধরে ধান কাটছিলেন। তাঁরা থাকা ও ধান রাখার জন্য ওই হাওরে অস্থায়ী একটি ঘর তৈরি করে। আজ সোমবার বেলা তিনটার দিকে অন্য শ্রমিকেরা ধান কাটতে গেলে রান্নার দায়িত্বে থাকা শ্রমিক সাইদুল মিয়া (৪০) দুপুরের রান্না করে ঘুমিয়ে পড়েন।

বিজ্ঞাপন

কিন্তু চুলার আগুন না নেভানোয় পাশে থাকা খড় থেকে অস্থায়ী ওই ঘরে আগুন লেগে যায়। দ্রুত শ্রমিকেরাসহ আশপাশের মানুষ গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। ততক্ষণে ঘরে থাকা শ্রমিকদের প্রায় ১০০ মণ ধান, ৫০ হাজার টাকা, কয়েকটি মুঠোফোন, খাদ্যসামগ্রীসহ সবকিছু পুড়ে যায়।

নগর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য আশুতোষ সরকার বলেন, শ্রমিকদের শ্রমের বিনিময়ে পাওয়া প্রায় শতাধিক মণ ধান, ৫০ হাজার টাকাসহ সবকিছু পুড়ে গেছে। এতে শ্রমিকেরা দিশেহারা হয়ে পড়ছেন।

খালিয়াজুরি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এইচ এম আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘আমি খবর পেয়ে শ্রমিকদের খাবারসহ প্রয়োজনীয় কিছু সামগ্রীর ব্যবস্থা করেছি। প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাঁদের সহযোগিতা করা হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন