বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ ঘটনায় হাটহাজারীর পশ্চিম দেওয়াননগর রঙ্গিপাড়ার আনোয়ারা বেগম, ছানোয়ারা বেগম, লাকি আক্তার ও জানে আলম অগ্নিদগ্ধ হন। তাঁদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বুধবার ভোর চারটার দিকে পশ্চিম দেওয়াননগর রঙ্গিপাড়ার এক ব্যক্তির বসতঘরে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। শুষ্ক মৌসুম হওয়ায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে আবু তাহের, শাহ আলম, মাবিয়া খাতুন, নুরুল আলম, নুর নাহার বেগম, ফোরক আহমদের ঘরও পুড়ে যায়। অন্যান্য পরিবারের সদস্যরা ঘর থেকে বের হতে পারলেও মারা যাওয়া মা–ছেলে ও আহত ব্যক্তিরা ঘরের ভেতর আটকে পড়েন। পরে স্থানীয় ব্যক্তিরা তাঁদের উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে নেওয়ার পর বুধবার সকালে চিকিৎসকেরা রোহানকে মৃত ঘোষণা করেন। তাঁর মা বৃষ্টি আক্তার (২০) বুধবার রাত সাতটার দিকে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

স্থানীয় সূত্র জানায়, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কর্মীরা ভোর সোয়া চারটার দিকে ঘটনাস্থলে আসেন। তাঁরা সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।

এ বিষয়ে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুহাম্মদ শাহিদুল আলম বলেন, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত পশ্চিম দেওয়াননগর রঙ্গিপাড়ার পরিবারগুলোকে সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা মুহাম্মদ শাহজাহান বলেন, তাঁরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই আহত ব্যক্তিদের নিয়ে হাসপাতালে চলে যান স্বজনেরা। তাঁরা আগুন নেভানোর কাজ করেছেন। চুলার আগুন বা বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট হয়ে আগুন লাগতে পারে বলে তিনি ধারণা করছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন