default-image

মাদ্রাসাছাত্রদের গুলি করার অভিযোগে হাটহাজারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন হেফাজতে ইসলামের আমির জুনায়েদ বাবুনগরী।

আজ শুক্রবার জুমার নামাজের পর হাটহাজারীর জেলা পরিষদ মার্কেট চত্বরে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে এই দাবি জানান হেফাজতে ইসলামের আমির। হেফাজতের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই বিক্ষোভ সমাবেশ ডাকা হয়। বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জুনায়েদ বাবুনগরী।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে গত শুক্রবার জুমার নামাজের পর ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদ এলাকায় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশ ও সরকারি দলের নেতা-কর্মীদের সংঘর্ষ হয়। প্রতিবাদে হাটহাজারীতে মাদ্রাসাশিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। একপর্যায়ে থানায় হামলার ঘটনা ঘটে। পুলিশ গুলি ছোড়ে। সেদিন হাটহাজারীতে সংঘর্ষে আহত ব্যক্তিদের হাসপাতালে নেওয়া হয়, যাঁদের মধ্যে চারজন মারা যান। এই ঘটনার প্রতিবাদে আজ দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে হেফাজতে ইসলাম।

বিজ্ঞাপন

হাটহাজারীর জেলা পরিষদ মার্কেট চত্বরে আয়োজিত আজকের সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন হেফাজত ইসলামের হাটহাজারী উপজেলা শাখার আমির মাওলানা শোয়ায়েব। সমাবেশে বক্তব্য দেন হেফাজত ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব নাসির উদ্দিন, সহকারী অর্থ সম্পাদক আহসানুল্লাহ, মাওলানা ওমর, ইমরান সিকদার প্রমুখ।

জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, ‘আমরা বঙ্গবন্ধুর জন্য দোয়া করি। বাংলাদেশের জন্য দোয়া করি। আমরা স্বাধীনতা, দেশ বা সরকারবিরোধী নই। নাস্তিকদের বিরোধিতা করি।’

জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, ‘যাঁরা নিরীহ ছাত্রদের গুলি করেছে, তাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন চলবে। হাটহাজারী থানার ওসি রফিকুল ইসলামের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। তিনি ওসি থাকতে পারবেন না।’

হেফাজতের বিক্ষোভ সমাবেশকে কেন্দ্র করে আজ বেলা একটা থেকে হাটহাজারী-খাগড়াছড়ি সড়ক বন্ধ করে দেয় পুলিশ। হাটহাজারী কাছারি সড়কের মুখে কাঁটাতারের ব্যারিকেড দিয়ে পুলিশ অবস্থান নেয়। এতে সড়কের দুই পাশে আটকা পড়ে যানবাহন। গন্তব্যে পৌঁছাতে অনেককে পায়ে হেঁটে যেতে দেখা যায়। বেলা সোয়া তিনটার দিকে সমাবেশ শেষ হওয়ার পর যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

এদিকে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে জুমার নামাজের পর নগরের আন্দরকিল্লাহ শাহি জামে মসজিদ চত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন মহানগর হেফাজতের নেতা-কর্মীরা। সেখানেও পুলিশের সতর্ক উপস্থিতি ছিল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন