বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সংবাদ সম্মেলন লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইসলামী আন্দোলনের পাথরঘাটা ইউপি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক মো. আবুল কালাম। এ সময় নাচনাপাড়া ইউপি নির্বাচনে হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মো. আতিকুর রহমান এবং রায়হানপুর ইউপি নির্বাচনে দলটির প্রার্থী মো. শহিদুল ইসলাম সেখানে উপস্থিত ছিলেন। দলের ওই দুই ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী ছাড়াও আরও বক্তব্য দেন ইসলামী আন্দোলনের বরগুনা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক কামিনুল ইসলাম, সহপ্রশিক্ষণ সম্পাদক আবু সালেহ, পাথরঘাটা ইউপি নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক মো. আবুল কালাম, যুগ্ম আহ্বায়ক শাহ আলম মুন্সি, সদস্যসচিব মোখলেছুর রহমান, যুগ্ম সদস্যসচিব মো. মাসুম বিল্লাহ প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে ওই দুই প্রার্থী ও দলের পক্ষ থেকে বলা হয়, ১৩ ও ১৫ নভেম্বর রায়হানপুর ইউপি নির্বাচনে হাতপাখা প্রতীকের প্রচারণায় মাইক ভাঙচুর করেন নৌকার কর্মী-সমর্থকেরা।

সংবাদ সম্মেলনে ওই দুই প্রার্থী ও দলের পক্ষ থেকে বলা হয়, ১৩ ও ১৫ নভেম্বর রায়হানপুর ইউপি নির্বাচনে হাতপাখা প্রতীকের প্রচারণায় মাইক ভাঙচুর করেন নৌকার কর্মী-সমর্থকেরা। একই সঙ্গে হাতপাখার গণসংযোগে যাঁরা অংশ নেন, তাঁদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হুমকি দেন নৌকার প্রার্থী ও সমর্থকেরা। একইভাবে নাচনাপাড়া ইউপি নির্বাচনে হাতপাখা প্রতীকের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের হুমকি দেওয়া হয়েছে। এ ধরনের হুমকির একাধিক অডিও রেকর্ড দলটির নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের মুঠোফোনে রয়েছে, যা সংবাদ সম্মেলনে শোনানো হয়। এমনকি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে মাইকে প্রচার-প্রচারণায় নামলেই তাতে বাধা দেন নৌকার প্রার্থী-সমর্থকেরা।

এসব ঘটনায় রায়হানপুর ও নাচনাপাড়া ইউপির হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী শহিদুল ইসলাম ও আতিকুর রহমান পৃথক পৃথকভাবে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। তবে ওই অভিযোগের বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।
ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থীরা আরও বলেন, নাচনাপাড়া ও রায়হানপুর ইউপি নির্বাচনে হাতপাখার সমর্থক ও নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে নৌকার সমর্থকেরা প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছেন যে যাঁরা নৌকায় ভোট দেবেন কেবল তাঁরাই কেন্দ্রে যাবেন। না হলে কেউ যেন কেন্দ্রে না যায়।

জানতে চাইলে পাথরঘাটা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও ওই দুটি ইউপির রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. আইউব আলী হাওলাদার আজ বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, এ ধরনের ১০টি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিটি অভিযোগের ব্যবস্থা নিতে পাথরঘাটা থানাসহ প্রশাসনকে বলা হয়েছে। তারা কেন ব্যবস্থা নিচ্ছে না, তা খতিয়ে দেখা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন