বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দফাদার আবুল কালাম জানান, খোঁজাখুঁজির একপর্যায়ে আজ শুক্রবার সকাল সোয়া আটটার দিকে শিশুটি যে স্থানে নিখোঁজ হয়েছিল ওই স্থানের প্রায় ১০০ গজ দূরে বেড়িবাঁধের বাইরে জোয়ারের পানিতে তার লাশ ভেসে উঠতে দেখেন স্বজনরা। পরে তারা লাশটি উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে যান তারা। লাশ উদ্ধারের পর স্বজনদের আহাজারিতে পুরো এলাকার পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে।

হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইমরান হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, জোয়ারের পানিতে নিখোঁজ হওয়া শিশুর লাশ উদ্ধার হওয়ার বিষয়টি তিনি জেনেছেন। বিষয়টি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খানকে জানানো হয়েছে। সরকারি নিয়ম অনুযায়ী নিহত শিশুর পরিবারকে ২৫ হাজার টাকার আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন