বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এর আগে গত সপ্তাহে কর্ণফুলী উপজেলার ব্রিজঘাট সড়ক, মইজ্জারটেক এলাকাতেও হাতি দিয়ে চাঁদা তোলা হয়। ওই সময় যানবাহন ও পথচারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

আজ দুপুর ১২টার সময় পিএবি সড়কের চেয়ারম্যানঘাটা এলাকায় দেখা যায়, সড়কের চলাচলকারী সিএনজিচালিত অটোরিকশা, মোটরসাইকেল থেকে শুরু করে সব ধরনের যানবাহন থেকে টাকা নেওয়া হচ্ছিল।

অটোরিকশাচালক আবদুর রহমান বলেন, বাঁশখালীর চাঁনপুর থেকে ভাড়া নিয়ে মইজ্জারটেক যাওয়ার পথে তিনি চেয়ারম্যানঘাটা এলাকায় হাতির সামনে পড়েন। টাকা ছাড়া কোনোভাবেই সামনে যেতে দেওয়া হচ্ছিল না। পরে তিনি পাঁচ টাকা দিয়েছেন।

অটোরিকশার যাত্রী নুরুল আলম বলেন, ‘আমাদের গাড়ি হাতির সামনে পড়লে ভয় পেয়ে যাই। পরে আমরাও টাকা দিয়েছি।’

তবে ওই হাতির মাহুত নুরুল আবছারের দাবি, তিনি চাঁদা নিচ্ছেন না। তবে হাতিকে খাওয়ানোর জন্য সামান্য সাহায্য নেওয়া হচ্ছে। এই হাতি পাঁচ টাকার নিচে নেয় না বলে জানান তিনি।

অভিযোগের বিষয়ে আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ জোবায়ের আহমেদ বলেন, হাতি বা বন্য প্রাণী ব্যবহার করে সড়কে চাঁদাবাজি করা উচিত নয়। এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন