বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আহত ওই গৃহবধূর নাম রেহেনা খাতুন (৪০)। তিনি ওই এলাকার নূর ইসলামের স্ত্রী। রেহেনা বর্তমানে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, নূর ইসলামের সঙ্গে একই গ্রামের বাসিন্দা বেলাল হোসেনের দীর্ঘদিন ধরে জমিসংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। গতকাল দুপুরে নূর ইসলামের বাড়ির আঙিনায় বেলাল হোসেন ও তাঁর লোকজন টিনের চালা তোলার চেষ্টা করেন। এতে বাধা দিতে গেলে নূর ইসলাম ও রেহেনা খাতুনকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর শুরু করেন প্রতিপক্ষের লোকজন। এতে রেহেনা খাতুন হাতে ও মাথায় গুরুতর আঘাত পান। এ সময় স্থানীয় লোকজন আহত অবস্থায় রেহেনাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

default-image

নূর ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, গতকাল তাঁর স্ত্রীকে মারধর করার পর ওই দিন রাতে তাঁর বাড়ির রান্নাঘর ও গোয়ালঘরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেন প্রতিপক্ষের লোকজন। এতে চারটি ছাগল, হাঁস-মুরগি আগুনে পুড়ে মারা গেছে বলে জানান তিনি।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে বেলাল বলেন, ‘আমরা তাঁদের বাড়িতে ভাঙচুর বা অগ্নিসংযোগ করিনি। এমনকি তাঁদেরকে কোনো মারধরও করা হয়নি। তাঁরা যে অভিযোগ করেছেন, তা মিথ্যা।’

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এরশাদুল আলম বলেন, এ ঘটনায় অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন