বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আহত যুবকের নাম লিটন প্রামাণিক (৩৬)। তিনি ভেড়ামারা উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের নবির উদ্দিনের ছেলে। তিনি দ্বিতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সদস্যপদে নির্বাচন করে পরাজিত হন। তিনি নৌকার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেন। ওই ইউপিতে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। লিটন অভিযোগ করেছেন, নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানের সমর্থকেরা তাঁকে হাতুড়িপেটা করেছেন। তবে পুলিশ বলছে, পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের কারণে লিটনকে মারধর করা হয়েছে।

গত রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় স্থানীয় মির্জাপুর বাজারে গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে হাতুড়িপেটা করা হয় তাঁকে। তাঁকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ৩ নম্বর ওয়ার্ডে (পেয়িং ওয়ার্ড) তাঁকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

গতকাল সোমবার দুপুরে গিয়ে দেখা যায়, যন্ত্রণায় ছটফট করছেন লিটন। চিকিৎসকেরা জানান, লিটনের দুই পাসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় শক্ত কিছু দিয়ে আঘাতের একাধিক চিহ্ন রয়েছে।

লিটন বলেন, গত রোববার সকালে তিনি মাছের খামারে বসে ছিলেন। এ সময় চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হাসানুজ্জামানের সমর্থক মো. ফারদেসের নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২ জন তাঁর মাছের খামার থেকে তাঁকে তুলে নিয়ে যান। ইজিবাইকে করে নিয়ে যাওয়ার সময় তাঁকে হাতুড়িপেটা করা হয়। একপর্যায়ে মির্জাপুর বাজারে গিয়ে একটি গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে বাঁধা হয় তাঁকে। তাঁর বাবা উদ্ধার করতে গেলে তাঁকেও মারধর করে ফেলে রাখেন তাঁরা।

আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সাহেদ আহমেদ শওকত বলেন, ‘ নৌকার পক্ষে নির্বাচন করায় তাঁকে গাছের সঙ্গে বেঁধে হাসানুজ্জামান ও তাঁর লোকজন মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্মমভাবে নির্যাতন চালিয়েছেন। এ অমানবিক ও নিষ্ঠুর নির্যাতনের তীব্র নিন্দা ও দোষীদের বিচারের দাবি জানাচ্ছি।’

লিটনকে তুলে নিয়ে হাতুড়িপেটার বিষয়ে ফারদেস বলেন, ‘আমি সেখানে ছিলাম না। কী হয়েছে জানি না।’

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান বলেন, ‘মারধরের খবর শোনার পর লিটনকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌঁছে দিই। এরপরও আমাকে জড়ানো হচ্ছে। এখানে রাজনৈতিক ফায়দা নেওয়া হচ্ছে। পারিবারিক দেনাপাওনার বিষয়ে তাঁকে কে বা কারা মারধর করেছে।’

ভেড়ামারা থানার ওসি মজিবুর রহমান বলেন, লিটনের সঙ্গে এলাকায় কয়েকজনের জমি কেনাবেচা নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ রয়েছে। লিটনের কাছে এক ব্যক্তির ৫০ হাজার টাকা পাওয়া আছে। এ নিয়ে বিরোধে মারধরের ঘটনা। এখানে নির্বাচনসংক্রান্ত কোনো বিষয় নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন