default-image

গ্রামবাসীর সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলা করতে ২৪ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এ ছাড়া হলের তালা ভেঙে ভেতরে অবস্থানরত ছাত্রদের বিদ্যুৎ, গ্যাসসহ অন্যান্য মৌলিক সুযোগ–সুবিধা প্রদান করাসহ ছয় দফা দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। আজ রোববার বেলা একটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বরে এক সংবাদ সম্মেলনে দাবি তুলে ধরেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের অন্য দাবিগুলো হলো গেরুয়ায় অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের পুলিশি নিরাপত্তায় ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে আনা, হামলায় আহত শিক্ষার্থীদের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন, আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত শিক্ষার্থীদের ক্ষতিপূরণ প্রদান।

তবে হলে অবস্থানরত শিক্ষার্থীরা বলছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় হল প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিদ্যুৎ, গ্যাসসহ সব মৌলিক সুযোগ–সুবিধা প্রদান করা হয়েছে।

মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা জেফরুল হাসান চৌধুরী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রারের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা অফিস এই হামলার ঘটনায় মামলা করবে। গতকাল শনিবার থেকে মামলার প্রক্রিয়া চলমান।

এর আগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে গেরুয়ার স্থানীয় লোকজনের সংঘর্ষের জেরে গতকাল উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে চার দফা দাবি পেশ করেন শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনার সুষ্ঠু বিচার, আহতদের চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন এবং গেরুয়ায় সীমানাপ্রাচীরসহ গেট নির্মাণের দাবি মেনে নিলেও রাষ্ট্রীয় বিধিনিষেধ থাকায় শিক্ষার্থীদের হলে ওঠার দাবি মেনে নেয়নি। পরে শিক্ষার্থীরা হলের তালা ভেঙে ভেতরে অবস্থান নেন। আর প্রশাসনের পক্ষ থেকে তালা লাগিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন