বিজ্ঞাপন

হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মুহাম্মদ রুহুল আমিন প্রথম আলোকে বলেন, রাউজানের পশ্চিম গুজরা ইউনিয়নের আজিমেরঘাট, পশ্চিম কাগতিয়া এবং হাটহাজারীর গড়দোয়ারা ইউনিয়নের নয়াহাট ও মাছুয়াঘোনা খাল এলাকায় অপেক্ষায় থাকা সংগ্রহকারীদের একেকজন ৫০ থেকে ২০০ গ্রাম পর্যন্ত ডিম পেয়েছেন।

এ মাসের শুরু থেকে পূর্ণ প্রজনন মৌসুম শুরু হওয়ায় নদীতে অপেক্ষায় ছিলেন ডিম সংগ্রহকারী ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। তাঁরা আশা করছেন, বজ্রপাতসহ ভারী বৃষ্টি হলে আজ বুধবার জোয়ার কিংবা ভাটার সময় নদীতে মা মাছ পুরোদমে ডিম ছাড়া শুরু করতে পারে। কারণ, এখন নদীতে মা মাছের আনাগোনা শুরু করেছে।

default-image

গত কয়েক দিনে সরেজমিনে দেখা গেছে, দুই উপজেলার ৪টি সরকারি হ্যাচারি ও ১৪৫টি মাটির কুয়ায় রেণুপোনা ফুটানোর জন্য নানা প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন প্রশাসন ও সংগ্রহকারীরা। প্রশাসন ও নদীর গবেষকদের ধারণা, এবার নদীর পরিবেশ গত ২০ বছরের মধ্য সবচেয়ে বেশি নিরাপদ। এ কারণে এবার ডিম সংগ্রহের পরিমাণ বাড়তে পারে। তবে এ বছর দীর্ঘ সময় থেকে বৃষ্টিপাত বন্ধ থাকায় শঙ্কাও তৈরি হয়েছে। কারণ, ডিম ছাড়তে মা মাছ বজ্রপাত আর বৃষ্টির অপেক্ষায় থাকে।

হালদায় গত বছর ডিম সংগ্রহে ১৪ বছরের রেকর্ড ভঙ্গ হয়েছিল, ডিম পাওয়া গিয়েছিল ২৫ হাজার ৫৩৬ কেজি। এর আগের বছর ডিম সংগ্রহের পরিমাণ ছিল সাত হাজার কেজি। জানা গেছে, এবার নদী থেকে ডিম সংগ্রহ করতে ৩০০ নৌকা নিয়ে ৬০০ থেকে ৭০০ সংগ্রহকারী অপেক্ষায় আছেন।

হাটহাজারী উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাজমুল হুদা এবং রাউজান উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা পীযূষ প্রভাকর বলেন, গতকাল রাতে নদীর একাধিক স্থানে কিছু নমুনা ডিম সংগ্রহ করা গেছে। ডিম সংগ্রহকারী ও হালদার স্বেচ্ছাসেবক রোশাঙ্গীর আলম গতকাল রাত সাড়ে ১২টায় প্রথম আলোকে বলেন, আজিমেরঘাট, কাগতিয়া এলাকাসহ একাধিক স্থানে নমুনা ডিম পাওয়া গেছে।

হালদা গবেষক ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক মনজুরুল কিবরিয়া প্রথম আলোকে বলেন, ‘গতকাল রাতে নমুনা ডিম ছেড়েছে। সামনে বজ্রসহ বৃষ্টি হলে পুরোদমে ডিম ছাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আমরা নদীতে পর্যবেক্ষণে রয়েছি।’
হাটহাজারী ও রাউজানের ইউএনওরা জানান, নদীর পরিবেশ গত ২০ বছরের তুলনায় এবার সবচেয়ে ভালো। নদীর প্রজনন এলাকার ১০ কিলোমিটার এখন সিসি ক্যামেরার আওতায়। সব প্রকার বালু উত্তোলন এবং ড্রেজার ও যান্ত্রিক নৌযান চলাচল বন্ধ আছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন