হিজাব না খুলে বায়োমেট্রিক পদ্ধতি ব্যবহারের দাবিতে মানববন্ধন

মানববন্ধনে ২০ থেকে ২৫ জন ছাত্রী অংশ নেন। সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে
ছবি: প্রথম আলো

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষাসহ সরকারি ও বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানে হিজাব খুলে কান বের করে ছবি দেওয়ার পরিবর্তে বায়োমেট্রিক পদ্ধতি ব্যবহারের দাবি জানিয়েছেন কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন ছাত্রী। সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে মানববন্ধন করে তাঁরা এ দাবি জানান।

মানববন্ধনে ২০ থেকে ২৫ জন ছাত্রী অংশ নেন। ছাত্রীরা ‘হিজাব আমার সত্তার অংশ, পর্দা করা আমার সংবিধানিক অধিকার’, ‘কান দেখানো ছবি নয়, বায়োমেট্রিকে সব হয়’, ‘কান দেখিতে চাহিয়া লজ্জা দিবেন না’, ‘বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে জাতীয় পরিচয়পত্র কেন নয়?’এ রকম বিভিন্ন স্লোগান লেখা প্ল্যাকার্ড হাতে মানববন্ধনে অংশ নেন।

মানববন্ধনে ছাত্রীরা বলেন, মেয়েদের পর্দা করার কারণে বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাঁরা বাধার সম্মুখীন হন। চাকরির সাক্ষাৎকারে গেলে তাঁদের হিজাব খুলে মুখ দেখাতে হয়, তখন তাঁরা বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েন। চাকরি বা সরকারি সেবা নিতে যদি ধর্মীয় বিধান লঙ্ঘন করতে হয়, তাহলে ধর্মীয় স্বাধীনতা কোথায়? এই নিয়ম বাতিল করে হিজাব-নিকাব মেনে চলা মেয়েদের জন্য বায়োমেট্রিক পদ্ধতির ব্যবহার করতে হবে।

সাইয়েদা হুমায়রা নামের এক ছাত্রী বলেন, ‘আমরা চাই যেসব মেয়ে হিজাব-নিকাব পরিধান করে, তাদের জন্য যেন বিকল্প বায়োমেট্রিক পদ্ধতি ব্যবহার করে সব ক্ষেত্রে অংশগ্রহণের সুযোগ দেওয়া হয়। জাতীয় পরিচয়পত্র, ব্যাংক হিসাবসহ রাষ্ট্রীয় সব সুবিধা যেন নিশ্চিত করা হয়।’