default-image

হেফাজতে ইসলামের গত ২৮ মার্চের হরতালে নারায়ণগঞ্জে নাশকতা ও সহিংসতা সৃষ্টির অভিযোগে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইকবাল হোসেনকে আটক করেছে র‌্যাব-১১। গতকাল মঙ্গলবার রাত একটার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাঁকে আটক করা হয়।

কাউন্সিলর ইকবাল হোসেন নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক কমিটির কোষাধ্যক্ষ ছিলেন। তিনি ২ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সদস্য।

আজ বুধবার দুপুরে র‌্যাব-১১–এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জসিমউদ্দীন চৌধুরী স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব জানায়, হেফাজতে ইসলামের ডাকা হরতালের দিন নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মৌচাক, সানারপাড় ও শিমরাইল এবং চিটাগাং রোড এলাকায় ব্যাপক সহিংসতা, গাড়ি ভাঙচুর, নাশকতা সৃষ্টি ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। এসব ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় র‌্যাব ও পুলিশ বাদী হয়ে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে ৬টি মামলা করে। আটক ইকবাল হোসেন ওই মামলার এজাহারভুক্ত অন্যতম আসামি।

হরতালে পুলিশ-হেফাজতের দফায় দফায় সংঘর্ষে পুলিশ-সাংবাদিকসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। এই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ হয়েছে দুজন। আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ১৮টি গাড়ি। ভাঙচুর করা হয়েছে দুটি গণমাধ্যমের গাড়ি, অ্যাম্বুলেন্সসহ শতাধিক যানবাহন। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের তিন কিলোমিটার এলাকা সংঘর্ষে নিয়ন্ত্রণে নিতে পুলিশ ওই দিন ৪ হাজার ২০০টি শটগান ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়েছে। ওই ঘটনায় পরের দিন রাতে পুলিশ বাদী হয়ে ৫টি এবং র‌্যাব বাদী হয়ে ১টিসহ মোট ৬টি মামলা করে। ওই ৬ মামলায় ১৪৩ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। অজ্ঞাত আরও ২ হাজার ৬০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলায় বিএনপি, জামায়াত ও হেফাজতের নেতা–কর্মীদের আসামি করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন