বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালত ও মামলার সূত্রে জানা গেছে, ২০২১ সালের ৩ মার্চ গোয়েন্দা পুলিশ নাটোর শহরের পশ্চিম বাইপাস এলাকায় যাত্রীবাহী বাস থেকে ফেমালি বেগমকে ৩০ গ্রাম হেরোইনসহ আটক করে। পরে এ ঘটনায় উপপরিদর্শক আলী আকবর বাদী হয়ে সদর থানায় মামলা করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রেজাউল করিম তদন্ত শেষে একই বছর ১৮ এপ্রিল ফেমালির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন।

এরপর চলতি বছরের ২৭ ফেব্রুয়ারি আদালত আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে নিয়ে বিচার শুরু করে। মাত্র দুই মাসের মধ্যে সাতজন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষ করে আজ দুপুরে আদালত রায় ঘোষণা করেন।

নাটোরের সরকারি কৌঁসুলি সিরাজুল ইসলাম দণ্ডাদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ফেমালি বেগমের ৩০ গ্রাম হেরোইন বহনের অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আদালত এই রায় দিয়েছেন। দণ্ড অনুযায়ী ফেমালিকে সাত বছর সশ্রম কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে ও ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড পরিশোধ করতে হবে। অর্থ পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে তাঁকে আরও দুই মাস বিনাশ্রম কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে। রায় ঘোষণার সময় আসামি তাঁর সন্তান কোলে নিয়ে উপস্থিত ছিলেন। রায় ঘোষণার পর তাঁকে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন