বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রাইসুল ইসলাম বলেন, তাঁর স্বপ্ন ছিল বিয়ের পর নতুন বউকে হেলিকপ্টারে উড়িয়ে ঘরে তুলবেন। ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে বিয়ে করলেও করোনার কারণে সেই স্বপ্ন পূরণ করতে পারেননি। তবে এখন করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় অবশেষে তিনি স্ত্রীকে প্রথমববার ঘরে তুলতে হেলিকপ্টার ভাড়া করেছেন।

রাইসুলের বাবা আবদুল মান্নান বলেন, আজ মূলত তাঁর ছেলের দ্বিতীয় বিবাহবার্ষিকী উপলক্ষে প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়েছিল। যদিও এপ্রিল মাসে তাঁর ছেলের বিবাহবার্ষিকী ছিল। তবে রোজার কারণে তখন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়নি। আর ছেলের স্ত্রীকেও এখনো বাড়িতে ওঠানো হয়নি। সব মিলিয়ে আজ আত্মীয়স্বজন ও প্রতিবেশীদের দাওয়াত দেওয়া হয়েছিল।

আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হেলিকপ্টারে চড়ে পার্শ্ববর্তী কাহালু উপজেলার বামুজা গ্রামে শ্বশুরবাড়ি যান রাইসুল। এরপর সেখান থেকে রাইসুল তাঁর স্ত্রী রিজিয়া আকতারকে নিয়ে সকাল ১০টার দিকে দুপচাঁচিয়া উপজেলার চৌমুহনী বাজারে নিজ বাড়িতে ফেরেন। হেলিকপ্টারে স্ত্রীকে নিয়ে আসার খবরে চৌমুহনী বাজারের একটি চাতালে উৎসুক জনতার ভিড় জমে যায়।

এর আগে সকালে রাইসুল হেলিকপ্টার নিয়ে শ্বশুরবাড়ি বামুজা গ্রামের সিদ্দিকিয়া ফাজিল মাদ্রাসার মাঠে যান। এ সময় সেখানেও হেলিকপ্টার দেখতে গ্রামের মানুষের ঢল নামে। বামুজা গ্রামের বাসিন্দা আফজাল হোসেন বলেন, ‘এই অজপাড়াগাঁয়ে কেউ কাছ থেকে হেলিকপ্টার দেখেনি। তাই আমরা সবাই হেলিকপ্টার দেখতে এখানে ভিড় করেছি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন