default-image

রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলায় কিশোরীকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ধর্ষণের দায়ে বুধবার এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে জোর করে গর্ভপাত ঘটানোর দায়ে তাঁকে আরও ১০ বছর কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

দণ্ড পাওয়া ব্যক্তির নাম মোশফেকুর রহমান (৩৪)। তিনি বদরগঞ্জের জামুবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা। বুধবার দুপুরে রংপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-২-এর বিচারক মো. রোকনুজ্জামান তাঁর বিরুদ্ধে ওই রায় দেন। এ সময় আদালতে মোশফেকুর অনুপস্থিত ছিলেন। তিনি জামিন নিয়ে পলাতক।

বিজ্ঞাপন
জামিনে থাকা অবস্থায় আসামি আদালতে হাজিরা দিয়েছিলেন। তবে রায় ঘোষণার সময় তিনি পলাতক ছিলেন।
জাহাঙ্গীর হোসেন, সরকারি কৌঁসুলি

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ ও আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১০ সালে ওই কিশোরী দশম শ্রেণিতে পড়ত। তার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন মোশফেকুর। ২০১০ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি মেয়েটিকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে ধর্ষণ করেন মোশফেকুর। এরপর আরও কয়েকবার তাকে ধর্ষণ করা হয়। এতে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। তখন সে মোশফেকুরকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়। কিন্তু মোশফেকুর এতে অস্বীকৃতি জানান। মোশফেকুর জোর করে মেয়েটির গর্ভপাত ঘটান। এ ঘটনায় মেয়েটির বড় ভাই ২০১০ সালের ২২ মে মোশফেকুরকে আসামি করে থানায় মামলা করেন।

জানতে চাইলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত-২-এর সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, জামিনে থাকা অবস্থায় আসামি আদালতে হাজিরা দিয়েছিলেন। তবে রায় ঘোষণার সময় তিনি পলাতক ছিলেন।

মন্তব্য পড়ুন 0