বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নগর ভবন সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগর এনইসি সম্মেলনকক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেকের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের উন্নয়নের জন্য ১ হাজার ৫৩৮ কোটি বরাদ্দের অনুমোদন দেওয়া হয়। ওই বরাদ্দের অনুমোদন হওয়ার পর শনিবার দুপুর ১২টা ৩০ মিনিটে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের সঙ্গে দেখা করতে যান সিটি মেয়র ও কাউন্সিলররা। বরাদ্দ দেওয়ায় মন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান মেয়র ও কাউন্সিলররা। পরে মন্ত্রীর বাসভবনে এক মতবিনিময় সভা হয়। এতে মেয়র মনিরুল হক, কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন খান, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর কাউছারা সুমী বক্তব্য দেন। বেলা সাড়ে তিনটায় ওই সভা শেষ হয়। তিন ঘণ্টার ওই সভায় মন্ত্রী তাঁর জেলার সিটি করপোরেশনের মেয়র ও কাউন্সিলরদের উদ্দেশে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন।

তাজুল ইসলাম বলেন, কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের উন্নয়নকাজ টেকসই হতে হবে। এ বছরই কিছু বরাদ্দ দেওয়ার চেষ্টা করা হবে। প্রতি ওয়ার্ডের জন্য আলাদা করে প্রকল্প নিতে হবে। সিটি করপোরেশনের রাজস্ব আয় বাড়াতে হবে। লাকসাম প্রথম শ্রেণির পৌরসভা। সেখানে বছরে রাজস্ব আয় দেড় কোটি টাকার মতো। কুমিল্লা সিটি করপোরেশনে সেই তুলনায় রাজস্ব আদায় কম হচ্ছে। এটা বাড়াতে হবে। আইন, বিধি ও নীতিমালা মোতাবেক সিটি করপোরেশন চালাতে হবে।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সফিকুল ইসলাম বলেন, এই প্রকল্পের মধ্যে ১৫ তলা নগর ভবন, ৬ তলার দুটি সেবক কলোনি, আঞ্চলিক অফিসের উন্নয়ন, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, যানজট নিরসন, রাস্তাঘাট উন্নয়ন ও সৌন্দর্যবর্ধন, হাতিরঝিলের আদলে পুরাতন গোমতী নদী ও নগরের বিভিন্ন পুকুরের উন্নয়ন, সেতু তৈরি, নদীশাসন, ২০৩ কিলোমিটার নালা নির্মাণ, রাস্তাঘাটের আধুনিকায়ন ও আলোকসজ্জা স্থাপন, ১৪৬টি কবরস্থানের উন্নয়ন, ৩০৫ কিলোমিটার সড়ক ও ১৩ কিলোমিটার ফুটপাত, সাতটি আধুনিক শৌচাগার নির্মাণ, একটি করে ট্রাক ও বাস টার্মিনাল নির্মাণের কাজ রয়েছে।

মেয়র মনিরুল হক বলেন, ‘কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের উন্নয়নে মেগা প্রকল্পের বরাদ্দ দেওয়ায় মাননীয় স্থানীয় সরকারমন্ত্রীকে নগরবাসীর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাতে গিয়েছিলাম। তিনি নিজ জেলা কুমিল্লার প্রতি আন্তরিক।’

২০১১ সালের ১০ জুলাই কুমিল্লা সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠা হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিরোধী দলের মেয়রই নগর পিতার দায়িত্বে রয়েছেন। প্রতিষ্ঠার ১১ বছর পর উন্নয়নকাজের জন্য বড় আকারের বরাদ্দ পেল কুমিল্লা সিটি করপোরেশন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন