মৎস্য ব্যবসায়ী মো. শাহজাহান শেখ বলেন, মাছটি কেনার পর আড়তে রাখলে উৎসুক মানুষ তা দেখতে ভিড় করেন। রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দির নারুয়া এলাকার এক ব্যক্তি ঢাকায় ব্যবসা করেন। তাঁর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে কেজিতে ১০০ টাকা লাভে ১ হাজার ৪০০ টাকা কেজি দরে মোট ২৮ হাজার টাকায় মাছটি বিক্রি করা হয়েছে। মাছটি বেলা দুইটার দিকে মোটরসাইকেলে করে ওই ব্যক্তির গ্রামের বাড়ি বালিয়াকান্দি পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

default-image

গোয়ালন্দ উপজেলার সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. রেজাউল শরীফ বলেন, পদ্মা নদীতে পানি বাড়তে শুরু করেছে। ভবিষ্যতে নদীতে আরও বড় বড় রুই, কাতলা, বোয়াল, পাঙাশ, চিতলসহ বিভিন্ন দেশীয় প্রজাতির সুস্বাদু মাছ পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন