মাছ ব্যবসায়ী চান্দু মোল্লা বলেন, ‘আজ সকালে ফেরিঘাটে জেলে ঠান্ডু হালদার মাছ দুটি বিক্রির জন্য নিয়ে আসেন। এ সময় ওজন দিয়ে দেখি দুটি কাতলার ওজন প্রায় ২৫ কেজির একটু বেশি। পরে দরদাম করে ১ হাজার ২০০ টাকা কেজি দরে মোট ৩০ হাজার টাকায় মাছ দুটি কিনে নিয়েছি। মাছ দুটি আড়ত ঘরেই রাখা হয়েছে। কেজিপ্রতি ১০০ টাকা করে লাভ হলেই মাছ দুটি বিক্রি করে দেব।’

মুঠোফোনে ঠান্ডু হালদার বলেন, গতকাল রোববার রাতে তিনি স্থানীয় জেলেদের সঙ্গে পদ্মা নদীতে মাছ শিকারে বের হন। রাতে ঢালার চর এলাকার পদ্মা নদীতে কয়েকবার জাল ফেলেন। তবে শুরুতে তাঁরা তেমন ভালো কোনো মাছ পাচ্ছিলেন না। পরে ঢালার চরের শেষ সীমানায় তাঁরা জাল ফেলেন। পরে ভোরের দিকে জাল গোটানোর সময় ঝাঁকি দিলে বুঝতে পারেন জালে বড় কোনো মাছ ধরা পড়েছে। পরে নৌকায় জাল তুলতে তাঁরা দেখতে পান একসঙ্গে দুটি বড় আকারের কাতলা ধরা পড়েছে।

ঠান্ডু হালদার বলেন, ‘অনেক দিন পর দুটি বড় মাছ পাওয়ায় আমরা সবাই খুশি। দামও বেশ ভালো পেয়েছি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন