বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালত সূত্র জানায়, শিল্পগ্রুপ এসএ গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এসএ রিফাইনারি লিমিটেডের চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দীন ও তাঁর স্ত্রী ইয়াসমিন আলমের বিরুদ্ধে চেক প্রত্যাখ্যান (ডিজঅনার) হওয়ায় নগরের আগ্রাবাদ ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংকের পক্ষ থেকে ২০১৩ সালে ২৪ নভেম্বর আদালতে মামলা হয়। ২৭ কোটি ৯৭ লাখ ৮৮ হাজার ৭২ টাকার চেক প্রত্যাখ্যানের মামলায় দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরু হয় পঞ্চম যুগ্ম চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ আদালতে।

চেক চুরির বর্ণনা দিয়ে পঞ্চম যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ মো. জহির উদ্দিন আজ সোমবার চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজের কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে পঞ্চম যুগ্ম মহানগর দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন চেক প্রত্যাখ্যানের একটি মামলার নথি দেখতে আসেন আইনজীবী জোবায়ের আহমদ আওরঙ্গজেব। নথির সব কাগজপত্রসহ অফিস সহায়কেরা আইনজীবীকে নথি দেখতে দেন।

আইনজীবী নথি দেখে ফেরত দেওয়ার পর অফিস সহায়কেরা দেখতে পান সেখানে চেক নেই। তৎক্ষণাৎ বিষয়টি আইনজীবী সমিতি ও মহানগর দায়রা জজকে জানানো হয়। পরে আদালতের বেঞ্চ সহকারী ওই আইনজীবীর সঙ্গে নগরের আগ্রাবাদে গিয়ে দেখা করেন। বেঞ্চ সহকারীকে ওই দিন রাত ১০টার দিকে নথি থেকে চুরি করা চেক ফেরত দেন আইনজীবী জোবায়ের আহমদ।

নথি থেকে চেক চুরির বিষয়ে জোবায়ের আহমদ আজ বিকেলে প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিষয়টি সুরাহা হয়ে গেছে। আমার ক্লার্কসহ নথি দেখতে গিয়েছিলাম।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন