default-image

বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিক্ষানবিশ চিকিৎসকদের (ইন্টার্ন) ডাকা অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি প্রত্যাহার করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনার পর মঙ্গলবার দুপুরে কর্মসূচি প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় হাসপাতালের ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন। গত ৩১ অক্টোবর বেলা দুইটা থেকে কর্মবিরতি শুরু করেছিলেন শিক্ষানবিশ চিকিৎসকেরা।

মঙ্গলবার বেলা পৌনে একটায় ইন্টার্ন ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সজল পান্ডে ও সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম কর্মসূচি প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন। ঘোষণার পর কাজে যোগ দেওয়ার কথাও জানান তাঁরা।

এর আগে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত হাসপাতালের পরিচালকের কার্যালয়ে পরিচালক ও জ্যেষ্ঠ চিকিৎসকেরা কর্মবিরতিতে থাকা শিক্ষানবিশ চিকিৎসক ও যাঁর বিরুদ্ধে তাঁদের অভিযোগ হাসপাতালের মেডিসিন ইউনিট–৪-এর সহকারী রেজিস্ট্রার চিকিৎসক মাসুদ খানের মধ্যে আলোচনা হয়। এই আলোচনা ফলপ্রসূ হওয়ায় শিক্ষানবিশ চিকিৎসকেরা কর্মবিরতি প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেন।

বিজ্ঞাপন

গত ২১ অক্টোবর মেডিসিন ইউনিট–৪-এর সহকারী রেজিস্ট্রার মাসুদ খানের ওপর হামলা হয়। শিক্ষানবিশ চিকিৎসক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এই হামলা চালান বলে অভিযোগ করেন চিকিৎসক মাসুদ খান। এসব অভিযোগে তিনি হাসপাতালের পরিচালক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন তিনি। পরদিন ২২ অক্টোবর চিকিৎসক মাসুদ খানের বিরুদ্ধে কমিশন বাণিজ্যের অভিযোগ করে পরিচালক বরাবর পাল্টা লিখিত অভিযোগ দেন শিক্ষানবিশ চিকিৎসকেরা।

এরপর ৩০ অক্টোবর চিকিৎসক মাসুদ খান বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে ৩১ অক্টোবর বেলা দুইটা থেকে কর্মবিরতি শুরু করেন শিক্ষানবিশ চিকিৎসকেরা। হাসপাতালের পরিচালক মো. বাকির হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, উভয় পক্ষের সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনার পর সমঝোতা হয়েছে এবং শিক্ষানবিশ চিকিৎসকেরা তাঁদের কর্মসূচি প্রত্যাহারের লিখিত অঙ্গীকারপত্র জমা দিয়েছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0