বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় ভোটার ও ভোটকেন্দ্রের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, ভোট গ্রহণকালে সকাল সাড়ে ১০টার সময় কেন্দ্রের দিকে বাসগুলো আসছিল। বাসগুলোর ভেতরে শতাধিক বহিরাগত ব্যক্তি ছিলেন। কেন্দ্রের কাছাকাছি আসার পর তাঁদের কাছে জানতে চাওয়া হয়, কেন এসেছেন তাঁরা? কিন্তু তাঁরা কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। স্থানীয় লোকজন উত্তেজিত হয়ে বাসে উঠলে বহিরাগত ব্যক্তিরা বাস থেকে নেমে পালিয়ে যান। পরে উত্তেজিত লোকজন বাসগুলোর জানালা ও সামনে-পেছনের কাচ ভাঙচুর করেছেন। এ সময় দুটি বাসের চালক বাস নিয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও বাকি চারটি বাস ঘিরে রাখেন স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট শ্যামল চন্দ্র বসাক ঘটনাস্থলে গিয়ে চারটি বাস জব্দ করেন।

বাসগুলোতে অবস্থান করা বহিরাগত ব্যক্তিরা কেন্দ্রটি দখলের উদ্দেশ্যে এসেছিলেন বলে শুনেছেন।
শ্যামল চন্দ্র বসাক, জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট
default-image

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সিনিয়র সহকারী কমিশনার শ্যামল চন্দ্র বসাক বলেন, বাসগুলোতে অবস্থান করা বহিরাগত ব্যক্তিরা কেন্দ্রটি দখলের উদ্দেশ্যে এসেছিলেন বলে শুনেছেন। তবে কে বা কারা এসব বাসে বহিরাগত ব্যক্তিদের নিয়ে এসেছেন, তা এখনো জানা যায়নি। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাঘাব ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন পাঁচজন। নৌকা প্রতীকে জহুরুল হক, মোটরসাইকেল প্রতীকে বর্তমান চেয়ারম্যান তরুণ মৃধা, আনারস প্রতীকে জাহিদ সরকার, চশমা প্রতীকে বশির আহমেদ ও হাতপাখা প্রতীকে আজিজুল রহমান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন