default-image

বগুড়া-৬ (সদর) আসনের সাংসদ গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) সিরাজ বলেছেন, ৭ নভেম্বর সিপাহী জনতার অভ্যুত্থানের মাধ্যমে বাংলাদেশ দ্বিতীয়বার স্বাধীন হয়েছিল। সব চক্রান্ত ব্যর্থ করে দিয়ে দেশপ্রেমিক সিপাহী ও জনতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানকে মুক্ত করে দেশে সত্যিকার অর্থে স্বাধীনতাকে সুসংহত করেছিলেন। এর মধ্য দিয়ে গণতন্ত্রের নতুন যাত্রার সূচনা হয়েছিল।

জি এম সিরাজ আজ শনিবার বগুড়া জেলা বিএনপি আয়োজিত ৭ নভেম্বর বিপ্লব ও সংহতি দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন। জেলা শহরের নওয়াববাড়ি সড়কে দলীয় কার্যালয়ে এ সভা হয়।

বিজ্ঞাপন
জাতির ক্রান্তিলগ্নে জিয়াউর রহমান ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর বিপ্লবের মাধ্যমে দেশের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। তিনি দেশে একদলীয় শাসনব্যবস্থার পরিবর্তে বহুদলীয় গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেন।
গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ, সাংসদ, বগুড়া–৬ আসন

গোলাম মোহাম্মদ সিরাজ বলেন, ৭ নভেম্বর সিপাহী-জনতার ঐতিহাসিক বিপ্লবের মাধ্যমে মাতৃভূমি স্বাধীন অস্তিত্ব লাভ করেছিল এবং বহুদলীয় গণতন্ত্রের পথচলা নিশ্চিত হয়েছিল। এ বিপ্লবের নেতৃত্বে ছিলেন বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান। জাতির ক্রান্তিলগ্নে জিয়াউর রহমান ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর বিপ্লবের মাধ্যমে দেশের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। তিনি দেশে একদলীয় শাসনব্যবস্থার পরিবর্তে বহুদলীয় গণতন্ত্র ফিরিয়ে দেন।

সাংসদ সিরাজ আরও বলেন, ১৯৭৫ সালের আগে যেভাবে একদলীয় শাসনব্যবস্থা বাকশাল কায়েম করা হয়েছিল, জনগণের অধিকারকে হরণ করা হয়েছিল, ঠিক একই কায়দায় বর্তমানে সেই একই দল জনগণের অধিকার হরণ ও গণতন্ত্র ধ্বংস করে দেশে নব্য বাকশাল কায়েম করেছে। বিএনপির চেয়ারপারসন সেই বাকশালি সরকারের চরম প্রতিহিংসার শিকার। ৭ নভেম্বরের চেতনা থেকে শিক্ষা নিয়ে নেতা-কর্মীদের শপথ নিতে হবে। গণতন্ত্র উদ্ধার করতে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। সরকারের হাত থেকে অবরুদ্ধ গণতন্ত্র মুক্ত করতে হবে। এ জন্য দলীয় নেতা-কর্মীদের দরকার কঠিন ঐক্য আর জনগণের সঙ্গে সংহতি।

জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য কে এম খায়রুল বাশার সভা সঞ্চালনা করেন। বক্তব্য দেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মো. হেলালুজ্জামান তালুকদার, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ফজলুল বারী তালুকদার, বগুড়া-৪ আসনের সাংসদ মোশাররফ হোসেন, জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম, বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আলী আজগর তালুকদার, লাভলী রহমান প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0