৮ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া ঘাটে পৌঁছাল ফেরিটি

বিজ্ঞাপন
default-image

মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ও মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া নৌপথে ব্যাপকভাবে ব্যাহত হচ্ছে ফেরি চলাচল। বুধবার সকাল সাতটার দিকে কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে ছেড়ে আসা ফেরিটি প্রায় আট ঘণ্টায় শিমুলিয়া ঘাটে পৌঁছায়। পালের চর নামের নতুন চ্যানেল দিয়ে ফেরিটি ২টা ৫০ মিনিটে ঘাটে পৌঁছায়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডব্লিউটিসি) কর্মকর্তারা বলছেন, পালের চর নামের নতুন চ্যানেলটি ২৮ কিলোমিটার দীর্ঘ। আগের লৌহজং ও চায়না নৌ চ্যানেলটির দৈর্ঘ্য প্রায় ৯ কিলোমিটার। ফেরি পারাপারে সময় লাগত এক থেকে দেড় ঘণ্টা। পালের চরের নতুন এ চ্যানেল দিয়ে পদ্মা পারাপারে সময় লাগবে পাঁচ থেকে ছয় ঘণ্টা। তবে নদীতে স্রোত বেশি থাকলে লেগে যায় ৮ থেকে ৯ ঘণ্টা।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাট সূত্র জানায়, সকাল সাতটার দিকে বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর নামে ফেরিটি কাঁঠালবাড়ি ঘাট থেকে শিমুলিয়ার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। ফেরিটি ১টি যাত্রীবাহী বাস, ১১টি পণ্যবাহী ট্রাক ও স্বল্পসংখ্যক মোটরসাইকেল বহন করে। নতুন পালের চর নৌ চ্যানেলটি অতিক্রম করতে গিয়ে তীব্র স্রোতের মুখে পড়ে ফেরিটি। পরে স্রোতের বেগ সামলে শিমুলিয়া ঘাটে পৌঁছাতে লেগে যায় প্রায় আট ঘণ্টা।

প্রায় আট ঘণ্টা পর শিমুলিয়া ঘাটে আসা ফেরিটির মাস্টার মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘নতুন চ্যানেল দিয়ে ফেরিটি ঘাটে আনতে আমাকে নানা সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়েছে। নদীতে প্রচণ্ড স্রোত। সকাল সাতটায় ছাড়া ফেরি আসতে বেলা প্রায় তিনটা বেজে গেল। এত সময় ইঞ্জিন চললে দুর্ঘটনার ঝুঁকির পাশাপাশি ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়তে পারে। তাই এ পথে ফেরি চলানো খুবই মুশকিল।’

ফেরিটির ইঞ্জিনকক্ষে কর্মরত অজয় রায় বলেন, একটানা সাত-আট ঘণ্টা ফেরির ইঞ্জিন চললে তা ভয়াবহ গরম হয়। এমনকি মাঝেমধ্যে আগুনও ধরে যায়। খুবই ঝুঁকি নিয়ে এ পথে চলতে হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কাঁঠালবাড়ি ঘাটের ব্যবস্থাপক মো. আবদুল আলিম প্রথম আলোকে বলেন, ‘নতুন নৌ চ্যানেল পালের চর দিয়ে আমরা ফেরি চালাতে চাচ্ছি না। শিমুলিয়া থেকে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে ফেরি ৫ ঘণ্টার মধ্যে এলেও কাঁঠালবাড়ি থেকে শিমুলিয়া যেতে ৮ থেকে ৯ ঘণ্টা চলে যাবে। কারণ, শিমুলিয়া থেকে ফেরি ছাড়লে স্রোতের টানে দ্রুত আসতে পারে। কিন্তু কাঁঠালবাড়ি থেকে ফেরি স্রোতের উল্টোমুখে পড়ে। এ কারণে এ পথে ফেরি ছাড়লে নানা সমস্যার মুখে পড়তে হবে।’

এদিকে নাব্যতা–সংকটের কারণে ৩ সেপ্টেম্বর থেকে টানা ৯ দিন কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। এরপর দুই দিন ছোট কয়েকটি ফেরি চললেও অনির্দিষ্টকালের জন্য ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এ নৌ চ্যানেলে দীর্ঘস্থায়ী সমস্যা থাকায় নতুন নৌ চ্যানেল পালের চর দিয়ে গতকাল মঙ্গলবারও দুপুর ১২টায় কে–টাইপের ফেরি ক্যামেলিয়া স্বল্প যানবাহন লোড নিয়ে ছাড়া হয়। ফেরিটি শরীয়তপুরের জাজিরা হয়ে কাঁঠালবাড়ি ঘাটে আসে বিকেল ৫টা ২০ মিনিটে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন