দিনাজপুর শহরে যানজটে পড়ে ইজিবাইকচালক ও পথচারীর মধ্যে কথা–কাটাকাটির জেরে ইজিবাইকচালককে ঘুষি মেরে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ শুক্রবার বেলা একটার দিকে শহরের চুড়িপট্টি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ইজিবাইকচালকের নাম মো. খালেকুল ইসলাম (৪০)। তিনি দিনাজপুরের বিরল উপজেলার মোহনপুর এলাকার মৃত ছাবের হোসেনের ছেলে। কয়েক বছর ধরে দিনাজপুর পৌরসভার মেদ্ধাপাড়া এলাকায় বাস করতেন তিনি। তাঁর চার ছেলেমেয়ে রয়েছে।

অন্যদিকে অভিযুক্ত পথচারীর নাম সন্তোষ কুমার ওরফে ডাল মিয়া (৫৭)। তিনি শহরের মালদহপট্টি এলাকায় মেঘা বস্ত্রালয়ের স্বত্বাধিকারী। দোকানের ওপরেই নিজ বাসায় থাকেন তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহত ব্যক্তির পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, শুক্রবার সকাল থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত শহরের মালদহপট্টি, চুড়িপট্টি হয়ে চারুবাবুর মোড় পর্যন্ত বউ বাজার বসে। অন্যান্য দিনের চেয়ে বন্ধের দিন ওই এলাকায় বাজারের কারণে ভিড় বেশি থাকে। চুড়িপট্টি এলাকায় ইজিবাইকের কারণে যানজট সৃষ্টি হয়। এ সময় ওই পথ দিয়ে যাচ্ছিলেন সন্তোষ কুমার। যানজটে পড়ে ইজিবাইকচালক খালেকুলকে গালিগালাজ করেন তিনি। এর জবাব দিলে সন্তোষ কুমার রেগে গিয়ে খালেকুলের কানের নিচে ঘুষি মারেন। এতে কান দিয়ে রক্ত বেরিয়ে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। স্থানীয় ব্যক্তিরা তাঁকে উদ্ধার করে মাথায় পানি ঢালেন। পরে পকেটে থাকা মুঠোফোনে বের করে স্থানীয় ব্যক্তিরা তাঁর বাসায় ঘটনাটি জানান। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন খালেকুলের স্ত্রী নুরজাহান বেগম। স্বামীকে ইজিবাইকে তুলে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

দিনাজপুর কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তানভীরুল ইসলাম বলেন, একজন ইজিবাইকচালকের মারা যাওয়ার খবর পেয়েছেন তাঁরা। নিহত ব্যক্তির স্বজনেরা থানায় এসেছেন। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হচ্ছে। নিহত ব্যক্তির বড় ভাইকে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।